সুন্দরবনের শেষ রক্ষা তবে কি হবে না?

6213
SHARE

ধীরে ধীরে স্তিমিত হয়ে পড়েছে সুন্দরবন বাঁচানোর আন্দোলন। সবকিছুতে কোথায় জানি ভাটা পড়ে গেছে একেবারে। স্যোশাল নেটওয়ার্কেও মানুষ কেন জানি নীরব। #SaveSundarban বা #SayNoToRampal হ্যাশট্যাগে পোস্ট এখন আর দেখা যাচ্ছে না। কথিত ফেসবুক সেলিব্রিটিরা এখন অন্যদিকে ঝুঁকে গেছেন। ট্রেন্ড যেহেতু মরে গেছে। আর রামপালে বিদ্যুৎকেন্দ্র দেয়ার পক্ষের লোকজন বিজয়ী হাসি হাসছে।

তবে কেউ তো কোন ধরনের বাধা দেয়নি আন্দোলন করতে? অন্তত অনলাইনে ! তবে কি আমরা ক্লান্ত হয়ে গেছি অল্প কদিনে? আন্দোলন কি এত সোজা? ২/১ টা প্রতিবাদী স্ট্যাটাস এরপর সব শেষ? Go with the Flow টাই কি এখন আন্দোলন হয়ে গেছে?

কেন জানি মনে হচ্ছে, সুন্দরবন রক্ষাটা আর হলো না। সম্ভবত সুন্দরবনকে আমরা হারিয়ে ফেলতে যাচ্ছি। রামপালে নির্মান কাজ থামেনি। চলছে আগের মতই সবকিছুর প্রস্তুতি। কেউ আমলেই নেয়নি মানুষের আন্দোলন। আর আমরাও যা, প্রথমে আন্দোলন করেছি না জেনে। পরে যখন জেনেছি আসল ব্যাপারগুলো কি কি, তখন আবার আমরা ক্লান্ত। বাহ! ফেসবুকের বড় বড় মনিষীরা কোথায় জানি হারিয়ে গেলেন আতল গহবরে। বিদেশী অনেক পত্র-পত্রিকাও বাংলাদেশের এই রামপাল ইস্যু নিয়ে অনেক রিপোর্ট বের করেছে। অনেক জায়গায় পিটিশন হয়েছে। কিন্তু বাস্তবে এসবের ফলাফল কোথায়?

তার মানে কি অনলাইন আন্দোলন বা অনলাইনের মাধ্যমে আন্দোলন কি গ্রহনযোগ্যতা হারিয়েছে নাকি আন্দোলনের প্রসেসটাই ভুল ছিল? সরকার কি ব্যাপারটা একটুও আমলে নেননি। সরকারের কাছের অনেক বড় বড় মানুষ তাদের স্ট্যাটাসে আন্দোলনকারীদের উদ্দেশ্যে অনেক বকা-ঝকা মূলক পোস্ট দিয়েছেন। তাঁদেরও নিজেদের লজিক আছে।

২ দিন আগে আমরা একটা পরিসংখ্যান দেখিয়েছিলাম – এই আন্দোলন নিয়ে মানুষের পার্টিসিপেশন। তার মানে কি আমাদের প্রেডিকশন আসলেই সত্যি হচ্ছে। এই আন্দোলন মানুষ আসলেই তেমন একটা আমলে নিচ্ছে না? সুন্দরবনের প্রয়োজনীয়তাটা কি আসলেই সাধারন মানুষ বুঝতে পারছে না?

 

আপনার মন্তব্য