কিরনমালার কীর্তনখেলা! দড়ি হবে ফাঁস দেয়ার জন্য?

59
SHARE

খবর শুনেছেন নাকি? একেবারে ব্রেকিং খবর। সবকিছু ভেঙ্গেচুরে দেয়া খবর! ইন্ডিয়ান সিরিয়াল কিরনমালা দেখা নিয়ে হবিগঞ্জে বিশাল মারামারি – আহত শতাধিক! হাসপাতালে ভর্তি পর্যন্ত করানো হয়েছে! গাড়ি – দোকানপাট ভাঙচুর! ওয়াও! এই না হলে বাঙ্গালীরে! সেই তো! এতো ডেডিকেটেড হিন্দি সিরিয়াল ভক্ত!

খবরটা সব মেইন্সট্রিমে দেখার পর গলায় ফাস দিয়ে মরেই যেতে ইচ্ছে করছে। ওপরওয়ালাকে বলতে ইচ্ছে করছে “প্লিজ, একটা দড়ি ফেলেন, আমিই বেয়ে বেয়ে উঠে যাই”। Is it for real! Damn! আমরা কি একেবারেই এত নীচে নেমে গেছি?

ইন্ডিয়ান টিভি চ্যানেলের জালায় তো অবশ্য এখন বাসায় থাকা যায় না। আমি বুঝিনা বাংলাদেশী টিভি চ্যানেলগুলো কি আসলেই চলে নাকি লসে আছে? দেশী টিভি চ্যানেলগুলো টিকে আছে কেমনে? তবে এই কিরনমালা ঘটনার ব্যাপারটা মারাত্মক লজ্জার। যারা খবরটা শুনেননি… তারা নীচের খবরটি একটু পড়ে নিতে পারেন – খবরটি বিবিসি বাংলা থেকে নিলাম (কিছু মনে করবেন না প্লিজ) –

“বাংলাদেশের পুলিশ বলছে, হবিগঞ্জের একটি গ্রামে স্টার জলসার ধারাবাহিক নাটক ‘কিরণমালা’ দেখা নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত হয়েছে অন্তত ১৫জন। তাদের হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশকে ১৪ রাউন্ড শটগানের গুলি আর টিয়ারগ্যাস ছুঁড়তে হয়েছে।
তবে বাংলাদেশের স্থানীয় গণমাধ্যমগুলোয় বলা হচ্ছে, নারী ও শিশুসহ এই ঘটনায় শতাধিক মানুষ আহত হয়েছে।
হবিগঞ্জের সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ. ইয়াসিনুল হক বিবিসিকে জানান, ঘটনার সূত্রপাত হয় বুধবার রাতে। ধল গ্রামের একটি চায়ের দোকানে বসে গ্রামের কয়েকজন বাসিন্দা বসে টেলিভিশনে ভারতীয় ধারাবাহিক কিরণমালা দেখছিলেন। এ সময় ধারাবাহিকটির কিছু বিষয় নিয়ে কয়েকজনের মধ্যে তর্ক শুরু হয়। সেই তর্ক সে সময় হাতাহাতিতে গড়ালেও তাদের থামিয়ে দেয়া হয়।
”কিন্তু এর জের ধরে বৃহস্পতিবার সকাল সাতটার দিকে দুপক্ষের লোকজন সংঘর্ষ শুরু করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। সংঘর্ষ থামাতে পুলিশ নয় রাউন্ড শটগানের গুলি আর টিয়ারগ্যাস নিক্ষেপ করতে বাধ্য হয়।” বলেন মি. হক।
এ ঘটনায় অন্তত ১৫জন আহত হয়েছে, যাদের অনেককে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
তবে বাংলাদেশের স্থানীয় গণমাধ্যমে বলা হচ্ছে, নারী ও শিশুসহ এই ঘটনায় শতাধিক মানুষ আহত হয়েছে।
তবে এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।
এর আগে বাংলাদেশেই কিরণমালার মতো পোশাক কিনে না দেয়ায় কিশোরীর আত্মহত্যার মতো ঘটনাও ঘটেছে।”

আমরা যে কোন লেভেলে নেমে গেছি এটা মাঝে মাঝে ভাবতেই হয়। এই নিয়ে আমি বেজায় চিন্তিত। ইন্ডিয়ান সিরিয়াল দেখে এত বড় ঘটনা!

আসলে এই মুহুর্তে খুব বেশী কিছু মাথায় আর আসছে না। বরং কমেন্টে আপনারাই বলেন এই ব্যাপারে কিছু কমেন্ট সেকশনে।

আপনার মন্তব্য