হট নিউজ ২ টাকা!! মাত্র! – গ্রামীনফোন – প্লিজ মাফ কর!

59
SHARE

হট নিউজ মাত্র ২ টাকা, ২ টাকা অথবা গ্রিটিংস ফ্রম অমুক ডট কম! অথবা অমুক মোবাইল এসেছে – এখনই কিনুন বা ফ্রি ইন্টারনেট – এধরনের মার্কেটিং মেসেজে এসএমএস এর ইনবক্স ভর্তি হয়ে থাকে আজকাল। দম ফেলার সুযোগ পর্যন্ত পাওয়া যায় না। রাত নেই দিন নেই মার্কেটিং মেসেজগুলো আসতেই থাকে নানা ধরনের পসরা নিয়ে। অপারেটরদের কাছে অভিযোগ করলেও এর কোন সুরাহা হয় না। বলছি গ্রামীনফোনের ব্যাপারে। আমি গ্রামীন ফোনের সম্ভবত প্লাটিনাম প্লাস স্টার। একটু সুযোগ সুবিধা বেশীই পাওয়ার কথা। তার কথা বাদ দিলাম, অসুবিধা তো পাওয়ার কথা না। অন্য কোন সিম কখনও ব্যবহার করা হয়নি এ পর্যন্ত। এমনকি, এমন সব প্রতিষ্ঠান থেকে মার্কেটীং মেসেজ আসে, যেসব দোকানে আজ পর্যন্ত কোনদিন ঢুকিনি – যেমন সেদিন পেলাম ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড বা সবাই ডট কম!

DSC_8420

আমার প্রথম প্রশ্ন – এসমস্ত কোম্পানী আমার মোবাইল নাম্বার পেল কোথা থেকে। অবশ্যই আমি দোকানে দোকানে ঢুকে নিজের নাম্বার দিয়ে আসি না! ২য়ত, আমি কোনদিন বলিনি আমি কোন মার্কেটিং মেসেজ চাই আমার মোবাইলে! আর ৩য়ত হলো – এত বেশী মার্কেটিং মেসেজ? মগের মুল্লুক নাকি?

এই মুহুর্তে মনে হচ্ছে গ্রামীনফোন বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় স্প্যামার! মনে আছে, অনেক বছর আগে, আমাদের কাছে কিছু ইমেইল আসত আফ্রিকা থেকে। যেখানে বলা হতো – আপনার নামে কেউ একজন ১ মিলিয়ন ডলার রেখে গেছে, ক্লেইম করে নিতে হবে। আজকাল এসব স্প্যাম ইমেইল কমে গেলেও এখন দেখিস্প্যাম মেসেজের অভাব নেই! মাঝখানে প্রতিদিন সকালে “স্বপ্ন” নামের একটা স্টোর থেকে প্রতিদিনের চাল-ডালের দাম আসত! আরে, আমি কি বলেছি নাকি এসব আমাকে পাঠাতে! পুরো মোবাইলের ইনবক্স এসব মেসেজে ঠাসা। আর তাদের নিজস্ব জিপি অফার, ইন্টারনেট অফার এসব তো আছেই!

DSC_8425

এভাবে স্প্যামিং করে গ্রাহকদের বিরক্ত করার মানেটা কি? বিশেষ করে গ্রামীনফোনের মত প্রতিষ্ঠান! স্প্যামিং কি খুব ভাল জিনিষ? আর গ্রাহকদের তথ্য অন্য প্রতিষ্ঠানের কাছে কেন যাচ্ছে? কিভাবে যাচ্ছে? আমার কাছ থেকে কবে অনুমতি নিয়েছে? আমার মোবাইল নম্বর কেন এসব প্রতিষ্ঠানে থাকবে এবং কেন এসব প্রতিষ্ঠান থেকে আমি ঘন ঘন মেসেজ রিসিভ করব? কোন অধিকারে? গ্রামীন ফোনের সার্ভিস অবশ্যই আমি বিনামূল্যে ব্যবহার করি না! প্রতিমাসে কাড়ি কাড়ি টাকা দিয়ে ব্যবহার করি। ১ টাকার জায়গায় ২ টাকা দিয়ে ব্যবহার করি! আমার শতকরা ১০০ ভাগ অধিকার আছে আমি আমার মত করে সার্ভিস নেব এবং আমার অধিকার আছে এটা বলার যে গ্রামীনফোন বা যেকোন মোবাইল অপারেটরের কোন অধিকার নেই আমার মোবাইল নম্বর এবং অন্যান্য তথ্য থার্ড পার্টি কোন প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি করে দেয়ার। আমি সেই পারমিশন কাউকে দেয়নি।

DSC_8423

বিশেষ করে গ্রামীনফোনের মত প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে এধরনের ব্যবহার আমি আশা করিনি। এগুলো তো ছ্যাচড়ামি ছাড়া আর কিছু না। এর আগে একবার আমার গ্রামীনফোনের সিম কার্ড অন্য আরেকজন তুলে আমাদের ফেসবুকের একাউন্ট হ্যাক করা হয়েছিল। সেদিনও গ্রামীন ফোন কোন সাহায্য তো করেনি উল্টো নিজেরা কে তুলেছে সেটা নিয়ে অপারগতা দেখিয়েছিল। অবশ্যই ভেতরকার কেউ সাহায্য না করলে এভাবে একজনের সিম আরেকজন তুলতে পারে না। যাই হোক সেটি সিম কার্ড ফিংগার প্রিন্ট রেজিস্ট্রেশনের আগের ঘটনা। সেসময় প্রশাসন যদি হেল্প না করত, তাহলে পরিস্থিতি অনেক খারাপ হতো। ধন্যবাদ জানাই প্রশাসনকে সেসময়ের জন্য।

যাচ্ছেতাই ভাবে অপেরাটরগুলো গ্রাহকদের সাথে এসব করলে তাহলে তাদের ব্যবসার আসল মূলমন্ত্র কি? সরকারের কি এগুলো নিয়ে কোন নীতিমালা নেই? এত খরচ করে আমরা মোবাইল ফোন ব্যবহার করি, এত কোটি কোটি গ্রাহক, তাও অপারেটরদের লোভের কমতি নেই কেন?? গ্রাহকদের তথ্য বিক্রি করে দিয়েও কি টু-পাইস কামাতে হবে! যদি তথ্য বিক্রি না করেই থাকে, তাহলে এসব থার্ড পার্টি প্রতিষ্ঠান নাম্বারই পায় কেমনে আবার মার্কেটিং মেসেজও আসে কিভাবে?

DSC_8425

এগুলো তো আমার ব্যাক্তিগত অভিজ্ঞতা! আপনাদের অবস্থা কি? আওয়াজ তুলবেন? এসব এখন বিরক্ত লাগে! এতা কি তাদের বাপের দেশ নাকি? নাকি তাদের দাদার টাকায় চলি আমরা যে তারা যা খুশী তা করবে? তথ্য চুরির জন্য এদের নামে মামলা করা উচিত। মামলা করে কোটি কোটি টাকা ক্ষতিপূরন চাওয়া উচিত। অন্যান্য দেশে এভাবে তথ্য বিক্রি করে দেয়া খুব সেনসিটিভ ইস্যু। বাংলাদেশের মানুষকে সহজ সরল পেয়ে কি তারা যা ইচ্ছা তাই করতে পারবে?

কোনদিনও না। একটা ব্যবস্থা নিতেই হবে। কারন আজ হয়তো মোবাইল নম্বর বিক্রি করে দেয়া হচ্ছে। কার দেখা যাবে আপনাকেই বিক্রি করে দেবে। সাধু সাবধান!

আপনার মন্তব্য