প্রেম কি নারী হত্যার মতো পাষন্ডতা শেখায়!!!!

46
SHARE

সবকিছুই কেড়ে নেওয়া গেলেও কারো মন কিন্তু কেড়ে নেয়া যায় না কিন্তু মানুষরূপী পশু সেটি বুঝতে পারে না, কিংবা বোঝার ক্ষমতাও এদের নেই। তাই এরা মনকেও কেড়ে নিতে চায় কিন্তু মেয়েটি দেয়নিতখন সম্ভবত ছেলেটির চোখ পড়ে মেয়েটির দেহের ওপর মেয়েটি দেয়নি তাই জোর করেই নিল কেড়ে নিল দেহ, কেড়ে নিল প্রাণ কিন্তু মন পেল না অনেকের তো আবার শুধু দেহটাই প্রয়োজন চাহিদা মিটে গেলে দেহকে ছুড়ে ফেলে দেয় আর এই প্রাণের মিছিল দীর্ঘ হতে থাকে, বাড়তে থাকে চাপা কান্নার রোল

সম্প্রতি এই লাশের মিছিলে যোগ হয়েছিল রাজধানীর স্কুল ছাত্রী রিশা আলোচিত এই হত্যা নাড়িয়ে দিয়েছিল অনেকেরই বিবেক কিন্তু নাড়াতে পারেনি মানুষরূপী কিছু হায়েনার বিবেককে আর রিশার রেশ না কাটতেই প্রাণের মিছিলে যোগ হল মাদারীপুরের স্কুল ছাত্রী নিতু মন্ডল প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় তাকে হত্যা করে মিলন নামের এক নরপশু ধারালো ছুরি দিয়ে এফোড় ওফোড় করে দিয়েছে নিতুর শরীর নিতুর আর্তচিৎকার, কান্নাভেজা চোখ মন গলাতে পারেনি পাষন্ডের কেমন প্রেম! কেমন ভালবাসা! যার জন্য কেড়ে নিতে হবে প্রাণ প্রেম কি নারী হত্যার মতো পাষন্ডতা শেখায়?

তাহলে আমাদের এই সভ্য দুনিয়া কি ক্রমশ এগিয়ে যাচ্ছে বর্বরতার দিকে? পৃথিবীর সবচেয়ে সভ্য জাতিরা একের পর এক ঘটিয়ে যাচ্ছে অসভ্যতাআর আমরা আওরিয়ে যাচ্ছি বুলি নীতির বুলি সভা, সেমিনার, নিউজ হচ্ছে, কিন্তু লাশের এই মিছিল ধীরে ধীরে দীর্ঘ হয়ে আমাদেরকে ঘিরে ফেলছে আমরা নিজেরাই আটকে যাচ্ছি আমাদের তৈরি নানান ফাঁদে নৈতিকতার নানা চটকদার বাণী বলে নিজেকে যেন একজন ঠাওর করার চেষ্টা করছি কিন্তু নিজের ভিতরে কতটুকু নৈতিকতা আছে, নিজেরা কতটুকু নীতিবান, কখনো ভেবে দেখার ফুসরত পাইনি

ইদানীং আমাদের অনুভূতিগুলোও ভোতা হয়ে গেছে মানুষ মারা গেলেও আমাদের অনুভূতি নাড়া দেয় না এর চে যেন ঘরের কুকুরটি মারা গেলে আমরা বেশি কষ্ট পাই আচ্ছা প্রাণী মারা গেলে যে কষ্ট পায়, সে তো মানুষ মারা গেলেও পাবে আসলে আমাদের অনুভূতি নেই নেই মায়া যে যার মত করে ব্যস্ত হয়ে পড়ছে পাল্লা দিয়ে সবাই এগিয়ে যেতে চাইছে এতে করে কেউ পায়ের নিচে পিষ্ট হয়ে মরল কিনা সে খবর রাখার সময় কই তা না হলে সামান্য একটা মটর সাইকেলের জন্য একটি কিশোর তার জন্মদাতা বাবা মার গায়ে আগুন দিতে পারে! এজন্য আমরাও কম দায়ী নই আমরা আমাদেরকে সুন্দর করে সাজাইনি সাজাইনি আমাদের পরিবারকে, সমাজকে, দেশকে প্রতিযোগিতার এই দৌড়ে আমরা আমাদেরকেই যেন হার মানাচ্ছি প্রতিনিয়ত

কিন্তু কে শোনাবে সত্য সুন্দর বাণী সময়ের আবর্তে আমাদের নিজেদেরকেই হারিয়ে ফেলছি আমাদেরকে আবারও মানুষ হতে হবে, মানুষ করতে হবে আগামী প্রজন্মকে শুধু আধুনিকতাকে মানদন্ড মেনে, নিজেকে আধুনিক দাবী করে, উচ্ছৃংখল জীবন যাপন যদি মনুষ্যত্বকে টুটি চেপে ধরে তবে, পুরোনো সাদাসিদে জীবনই ভাল আর যদি আধুনিক জীবনকে নির্মলভাবে সাজিয়ে নেয়া যায়, আর উপযোগিতাকে সভ্যভাবে ব্যবহার করে নেয়া যায় তবেই স্বার্থকতা আসলে সবার আগে আমাদেরকে মানুষ হতে হবে

আপনার মন্তব্য