মার্কিন উন্মাদের বন্ধু যখন রাশিয়ান ভাঁড়
October 15, 2016
Bangladeshism Desk (766 articles)
Share

মার্কিন উন্মাদের বন্ধু যখন রাশিয়ান ভাঁড়

সোহেল হাবিব 

আমেরিকার নির্বাচনে এবারের রিপাবলিকানদের প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প ইতোমধ্যে নিজেকে বিশ্বের এক নম্বর উন্মাদ প্রমাণ করে ফেলেছেন। তাছাড়া, তার অতীত জীবনের নারী কেলেঙ্কারির ঘটনা একের পর এক ফাঁস হওয়ায় খোদ রিপাবলিকানরাই তাকে মাঠে একলা ছেড়ে পালিয়ে বাঁচার চেষ্টা করছেন। ঠিক সেই সময়, ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ভোট দিতে পরামর্শ দিচ্ছেন এক রাশিয়ান ভাঁড়।

যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের এক মিত্র মার্কিনিদের পরামর্শ দিয়ে বলেছেন,ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ভোট দিন অথবা পরমাণু যুদ্ধের ঝুঁকি নিন

বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে রুশ আইনজীবী ভ্লাদিমির জিরিনভস্কি বলেন, একমাত্র ট্রাম্পই মস্কো ওয়াশিংটনের মধ্যে চলমান বিপজ্জনক বিরোধের অবসান করতে সক্ষম। অন্যদিকে, ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বী ডেমক্রেটিক প্রার্থী হিলারি ক্লিন্টন তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ বাধিয়ে দেবেন।

ট্রাম্প এমনকি শান্তিতে নোবেল পুরস্কারও পেয়ে যেতে পারেন মন্তব্য করে জিরিনভস্কি বলেন, ট্রাম্প (প্রেসিডেন্ট হলে) সম্পর্কগুলো আরও শান্তিপূর্ণ হওয়ার দারুণ সুযোগ তৈরি হবে। তিনিই একমাত্র ব্যক্তি যিনি এটি করতে পারবেন।

গত মাসে রাশিয়ার সংসদ নির্বাচনে জিরিনভস্কির দল ক্রেমলিনপন্থি লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি অব রাশিয়া (এলডিপিআর) তৃতীয় স্থান দখলের পর প্রেসিডেন্ট পুতিন জিরিনভস্কিকে সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় পুরস্কারের ভূষিত করেন

রয়টার্সের প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, উল্টাপাল্টা মন্তব্য করে সবার মনযোগ আকর্ষণের চেষ্টার কারণে রাশিয়ার অনেক মানুষ জিরিনভস্কিকে ভাঁড় মনে করে। তবে ক্রেমলিন পলিসির একজন বিশ্বস্ত অনুগত হিসেবেও বিশ্ব জুড়ে তিনি পরিচিত

জিরিনভস্কি বলেন, রাশিয়া যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সম্পর্ক বর্তমান অবস্থার চেয়ে আর খারাপ হওয়া সম্ভব না। একমাত্র যদি যুদ্ধ বাধে তবেই কেবল এর চেয়ে খারাপ সম্পর্ক হতে পারে।

নভেম্বর একজন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জন্য ভোট দিতে আসা আমেরিকানদের বুঝতে হবে, যদি তারা ট্রাম্পকে ভোট দেন তবে তারা আসলে পৃথিবীর শান্তির জন্য ভোট দেবেন। আর যদি তারা হিলারিকে ভোট দেন তবে তা যুদ্ধের পক্ষে ভোট দেওয়া হবে। এটি একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র হবে। সারা বিশ্ব হিরোশিমা নাগাসাকিতে পরিণত হবে।

জিরিনভস্কি জানান, ২০০২ সালে নিউ ইয়র্কে ট্রাম্পের সঙ্গে তার সাক্ষাৎ হয়। ট্রাম্পের সঙ্গে তার অনেক বিষয়ে মিল রয়েছে। এমনকি ট্রাম্প তার আত্মীয় কিনা তা জানতে জিরিনভস্কি ডিএনএ পরীক্ষা করতেও আগ্রহী

রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনও খুবই বুদ্ধিমান বলে ট্রাম্পের প্রশংসা করেছেন। যদিও পুতিন ট্রাম্পের কখনওই সাক্ষাৎ হয়নি

ট্রাম্প মার্কিন প্রেসিডেন্ট বরাক ওবামার তুলনায় পুতিন অনেক ভালো নেতা বলে মন্তব্য করেন

ট্রাম্প রাশিয়ার ঘনিষ্ঠতা নিয়ে হিলারি বলেন, ট্রাম্প রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের সঙ্গে খুবই স্বচ্ছন্দ। রাশিয়ায় ট্রাম্পের ব্যবসায়িক সুবিধা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি

জিরিনভস্কি বলেন, “তিনি (হিলারি) ক্ষমতা চান। তিনি নিজেকে পৃথিবীর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি হিসেবে দেখতে চান এবং আমেরিকাকে ব্যতিক্রমী দেশ হিসেবে উপস্থাপণ করতে চান, যেমনটা বারাক ওবামা বলেছেন। এই ভাবনাটাই ভয়ঙ্কর। তিনি পরমাণু যুদ্ধ বাধিয়ে দিতে পারেন।

এমনকি হিলারি একজন নারী এবং কোনো নারীর হাতে দেশের নেতৃত্ব ছেড়ে দেওয়া ঝুঁকিপূর্ণ বলেও মন্তব্য করেন জিরিনভস্কি

তিনি বলেন, বেশির ভাগ আমেরিকানের ট্রাম্পকে বেছে নেওয়া উচিত কারণ তিনি একজন পুরুষ এবং লাখ লাখ বছর ধরে পুরুষরাই নেতৃত্ব দিয়ে আসছে। বিশ্বের অন্যতম ধনী সবচেয়ে শক্তিশালী দেশের নেতৃত্বে একজন নারী প্রেসিডেন্টকে নিয়ে আসার ঝুঁকি আপনি নিতে পারেন না।

নারীদের নিয়ে ট্রাম্পের অশ্লীল মন্তব্যের ব্যাখ্যায় জিরিনভস্কি বলেন, বিশ্ব জুড়ে সব পুরুষরাই শুধু তার বন্ধুদের জন্য কোনো না কোনো সময় ধরনের কথা বলে থাকে। আমাদের শুধুমাত্র তার ব্যবসা রাজনৈতিক দক্ষতা বিবেচনা করা উচিত।

সত্যিই অদ্ভুত সব কথা শুনছি আমরা জিরিনভস্কির কাছ থেকে। যা আসলে ভাঁড় না হলে কেউ বলতে পারে না। আর সে কারণেই ভাবছি, আমেরিকান এক উন্মাদ বন্ধু হিসেবে পেয়েছেন রাশিয়ান এক ভাঁড়কে।

আপনার মন্তব্য