এটা কোনো পুলিশের কাজ নয়
November 7, 2016
Bangladeshism Desk (766 articles)
Share

এটা কোনো পুলিশের কাজ নয়

ইমরান সুমন :

আপনাকে যদি প্রশ্ন করি, বলেন তো পুলিশের কাজ কী? আপনি উত্তর দিবেন? স্বাভাবিকভাবেই বলবেন, দেশের আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে রাখা। চোর, গুণ্ডা, বদমাইশ, সন্ত্রাসীদের ধরে গারদে ভরে শাস্তি নিশ্চিত করে সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা দেওয়া। আরও হয়তো অনেক কিছুই বলতে পারবেন। কিন্তু আপনাকে যদি বলি খানা-খন্দে ভরা রাস্তা মেরামত করতে মাঠে নেমেছে পুলিশ তাহলে কী বলবেন?

আপনি যা খুশি বলতে পারেন। কারণ এটা আসলে পুলিশের কাজ না। এর জন্য নির্দিষ্ট লোক আছে। এর জন্য মন্ত্রণালয় আছে, রাষ্ট্রীয় বরাদ্দ আছে। এবং এ খাতে জনবলেরও অভাব নেই। তাহলে পুলিশ আইনশৃঙ্খলা রক্ষার কাজ বাদ দিয়ে রাস্তা মেরামত করতে যাবে কোন দুঃখে?

এই প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার আগে আপনাকে একজন পুলিশ অফিসারের টাইমলানে শেয়ার করা স্ট্যাটাস পড়ার অনুরোধ থাকল। দেখুন ‘আপনার চলার পথটা মসৃন হোক’ শিরোনামে তিনি কী লিখেছেন-

“আজ জিইসি মোড়ে ডিউটি করতে গিয়ে দেখি জিইসি থেকে ওয়াসার দিকে গাড়ি যাচ্ছে খুব ধীরগতিতে ,কারণ হিসাবে যা দেখলাম তা যারা এই রোডে নিয়মিত যাতায়াত করেন তারা নিশ্চয় জানেন, এক ফ্লাইওভারের কারণে রাস্তা সরু হয়ে আছে তার উপর যতটুকু আছে সেখানে বিশাল গর্ত হয়ে গাড়ি চলাচলের অনুপযুক্ত হয়ে আছে, তাই চালকগণ সেই গর্তগুলোর পাশ দিয়ে খুব সাবধানে গাড়ি চালান আর তাই পিছনে গাড়ির জ্যাম লেগেই থাকছে।

পরে এক সিনিয়র স্যার বল্লেন এই নিয়ে পত্রিকায় রিপোর্টও হয়েছে তবুও কোন প্রতিকার হয়নি।আমি সব সময় যে কথাটি বলতে চেষ্টা করি তা হলো দেশ মাতার সেবা করা সবার কপালে জুটে না, যদিও কাজটা আমাদের করার কথা নয়, কিন্তু নিজের সামান্য কষ্ট হলেও হাজার মানুষের কল্যাণের কথা, কষ্ট সময় লাগবের কথা চিন্তা করে কাজটা করে দিলাম।

একজন পিকআপ চালককে অনুরোধ করে বল্লাম- ভাই, একটু সাহায্য করো। এই গর্তগুলো ভরাট করবো, সে সাথে সাথে বল্লো- চলেন স্যার, আমি যাবো। তাকে নিয়ে বিভিন্ন জায়গা হতে কিছু ইট পাথর জোগার করলাম এবং গর্তগুলো ভরাট করলাম।যার ফলে আজ বিকালে যারা এই সড়কে যাতায়াত করেছেন তারা নিশ্চয় এর সুফল ভোগ করেছেন।

আসলে উন্নয়নের কাজ হলে কিছুটা ত্যাগ সবাইকে করতে হয়, পরবর্তীকালের কথা চিন্তা করে। ফ্লাইওভারের কাজটি শেষ হলে সবাই এর সুফল ভোগ করবেন।

আপনারা ভালো থাকলেই আমরা ভালো থাকবো, দেশ মাতা ভালো থাকবে, সামনে এগিয়ে যাবে।

যার সামনে দেশ মাতার জন্য, দেশের মানুষের জন্য কাজ করার সুযোগ আসবে করে ফেলবেন, কোনটা কার কাজ তা না হয় পরে চিন্তা করা যাবে। আজ যাদেরকে পাশে পেয়েছি তারা হলো সার্জেন্ট আফসার, এ টি এস আই রহমান ও আরিফ নামক পিকআপের চালক; ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞ তাদের কাছে।

এস এম কামরুল হাসান পি পি এম
জিইসি
চট্টগ্রাম”

কি আপনার উত্তর পেয়েছেন? না পেয়ে থাকলে উপরের স্ট্যাটাস থেকে দুটি বাক্য পুনরায় দেখে নিন।

‘আমি সব সময় যে কথাটি বলতে চেষ্টা করি তা হলো দেশ মাতার সেবা করা সবার কপালে জুটে না, যদিও কাজটা আমাদের করার কথা নয়, কিন্তু নিজের সামান্য কষ্ট হলেও হাজার মানুষের কল্যাণের কথা, কষ্ট সময় লাগবের কথা চিন্তা করে কাজটা করে দিলাম।’
‘যার সামনে দেশ মাতার জন্য, দেশের মানুষের জন্য কাজ করার সুযোগ আসবে করে ফেলবেন, কোনটা কার কাজ তা না হয় পরে চিন্তা করা যাবে।’
আমাদের দেশের পুলিশসহ অন্যান্য সংস্থায় যারা কর্মরত আছেন তারা সবাই যদি সত্যিই যদি এমন করেই ভাবতেন, তাহলে আমাদের দেশের উন্নতি ঠেকিয়ে রাখা কারো সাধ্য ছিল?

আপনার মন্তব্য