জনতার কাছে হার মানলেন তুরস্ক প্রেসিডেন্ট এরদোগান
November 23, 2016
Bangladeshism Desk (766 articles)
Share

জনতার কাছে হার মানলেন তুরস্ক প্রেসিডেন্ট এরদোগান

আশরাফুল আলম

কদিন ধরেই তুরস্ক বেশ উত্তাল হয়ে উঠেছিল একটি বিতর্কিত বিলকে কেন্দ্র করে। বিলটিতে বলা হয়েছিল, কম বয়সী মেয়েদের ধর্ষণ করার পর ধর্ষক যদি মেয়েটিকে বিয়ে করতে সম্মত হন তাহলে তাকে ধর্ষণের অপরাধ থেকে মুক্তি দেওয়া হবে।

শুরু থেকেই এ বিলটি কড়া সমালোচনার মুখে পড়ে। সমালোচনাকারীদের দাবি ছিল, এই বিলটি পার্লামেন্টে পাশ হয়ে আইনে পরিণত হলে, একদিকে যেমন ধর্ষণ বেড়ে যেতে পারে, তেমনি বাল্যবিবাহও বাড়বে।

কিন্তু সমালোচনাকারীদের পাত্তা না দিয়ে এরদোগানের সরকার তা পার্লামেন্টে পাশের জন্য প্রস্তুতি নিতে থাকে। সমালোচনাকারীদের কথায় গুরুত্ব না দেওয়ায়, ক্ষোভে ফুঁসে উঠতে থাকে জনগণ। এবং তা ব্যাপকারে ছড়িয়ে পড়ে। ফলে কমবয়েসী মেয়ের সাথে কোন পুরুষ যৌন সম্পর্ক করলেও ‘বিয়ে করলে সে ক্ষমা পাবে’- তুরস্কে এমন একটি আইন করার চেষ্টা ভেস্তে গেছে।

এ সংক্রান্ত এক খবরে বলা হয়েছে, বিলটিতে বলা হয়েছিল, কোন পুরুষ কমবয়েসী মেয়ের সাথে যৌন সম্পর্ক করার দায়ে অপরাধী হলেও সে যদি ওই মেয়েটিকে বিয়ে করে তাহলে সে ক্ষমা পেয়ে যাবে।

কিন্তু এর সমালোচকরা বলেন, এটা ধর্ষণ এবং কমবয়েসী মেয়েদের বিয়ে করার প্রবণতাকে বৈধতা দেবে। জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থাও এ আইন পাস না করার আহ্বান জানিয়ে বলেছিল, এতে যৌন নিপীড়ন এব বাল্যবিবাহ মোকাবিলার প্রয়াস ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

এর পর অবস্থা বেগতিক দেখে তুরস্কের পার্লামেন্টে আইনটি পাসের কয়েক ঘন্টা আগে এটি ‘পুনর্বিবেচনার জন্য’ ফেরত পাঠানো হয়েছে।

খবরে আরও বলা হয়, তুরস্কের ফৌজদারি বিধিতে এর আগে ১৫ বছরের কম বয়েসী মেয়েদের সাথে যৌন সংসর্গকে যৌননিপীড়ন বলে সংজ্ঞায়িত করা হয়েছিল, তবে জুলাই মাসে তুরস্কের সাংবিধানিক আদালত তা বাতিল করে দেয়।

তুরস্কে বাল্যবিবাহ একটি বড় সমস্যা। সাবেক প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ গুল নিজেই ৩০ বছর বয়েসে বিয়ে করেন, যখন তার স্ত্রীর বয়েস ছিল ১৫ বছর।

এক পরিসংখ্যান থেকে জানা যায়, ২০০২ সাল থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে ১৮ বছরের কমবয়স্ক ৪ লক্ষ ৪০ হাজার নারী সন্তানের মা হয়েছে। এর মধ্যে প্রায় ১৬ হাজারই ১৫ বছরের কমবয়স্ক। দেশটিতে শিশুদের যৌননিপীড়নও গত ১০ বছরে তিন গুণ বেড়েছে।

এরদোগানের সরকার হয়তো ভালো উদ্দেশ্যেই আইনটি করতে যাচ্ছিলেন, কিন্তু বাস্তবতা হলো এতে ধর্ষণকারীরা উৎসাহীই হতো। কারণ তারা তখন জানতো যে, বেশি সমস্যায় পড়লে বিয়ে করেই পার পাওয়া যাবে। এটা কোনো সভ্য আইন হতে পারে না।

Latest Video Release

বাংলাদেশের টাইগারদের উৎসর্গ করে বাংলাদেশীজম প্রজেক্ট তৈরী করেছে একটি বিশেষ ভিডিও। নীচে ভিডিওটি দিয়ে দিলাম। দেখে ফেলুন।

আপনার মন্তব্য