ট্রাম্প বিনা কথা নাই


সোহেল হাবিব 

বিশ্বজুড়ে পত্রপত্রিকা, অনলাইন পোর্টাল, টেলিভিশন কিংবা সোশ্যাল মিডিয়া যাই বলুন না কেন, কোথাও এখন ট্রাম্প বিনা কথা নাই। এমনকি চায়ের টেবিল থেকে শুরু করে সকল আলোচনায় ট্রাম্প এখন অপরিহার্য সাবজেক্ট।

পৃথিবীজুড়ে বিভিন্ন দেশ থেকে প্রকাশিত ও প্রচারিত পত্রিকা, অনলাইন পোর্টাল, টেলিভিশনসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমের বিশাল অংশজুড়েই স্থান করে আছে ট্রাম্প এবং তার সম্পর্কিত নানা বিষয়। ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রামের মতো সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যগুলোতেও এখন একটাই আলোচনা। আর সেটা হলো- আমেরিকার নির্বাচন আর ট্রাম্পের প্রেসিডেন্ট হওয়া নিয়ে। ট্রাম্প কেমনে প্রেসিডেন্ট হইল। কীভাবে হইল।তার সময়ে বিশ্ব ব্যবস্থা কতটা টালমাটাল হতে পারে, এসবই আলোচনার বিষয়।

তবে সে ক্ষেত্রে পজেটিভ কথা আসছে খুব কমই, বেশিরভাগই হচ্ছে নেতিবাচক। কেননা, তার র্বণবাদী বক্তব্য মানুষকে দারুণভাবে ভয় পাইয়ে দিয়েছে। অভিবাসী এবং মুসলিম বিদ্বেষ নিয়ে আশঙ্কায় আছে বেশি সংখ্যক মানুষ।কিছু কিছু রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব কূটনৈতিক সম্পর্কের স্বার্থে তাকে শুভেচ্ছা জানালেও তাদের মধ্যেও আছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা।

নির্বাচনের পর পর ট্রাম্পের দেওয়া বক্তব্য আগের চেয়ে অনেক নমনীয় হওয়ার পরও বিশ্বজুড়ে সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ পর্যায়ের ব্যক্তিগণও কোনো মতে আশ্বস্থ হতে পারছেন না ট্রাম্পের ব্যাপারে।

কট্টরপন্থী শ্বেতাঙ্গ আমেরিকান এবং কিছু ইহুদি কিংবা তাদের সমর্থক ছাড়া অধিকাংশ মানুষের মনেই ট্রাম্পকে নিয়ে উদ্বেগ আর উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে।

ট্রাম্পকে নিয়ে যে আমেরিকার জনগণও বিপাকে আছে তার প্রমাণ হচ্ছে ইতিহাস, রাজনৈতিক সংস্কৃতি ভুলে গিয়ে তাদেরকেও সহিংস বিক্ষোভ করতে দেখা যাচ্ছে। বিক্ষোভকারীরা বিভিন্ন দোকানের সামনে ভাঙচুর করে, টায়ারে আগুন ধরিয়ে দিচ্ছে এবং পুলিশের রায়ট কারের দিকেও ঢিল ছুড়ছে। বুধবার ভোরে বার্কলে ও ওকল্যান্ড শহরে কয়েকশ মানুষ রাস্তায় নেমে ‘ট্রাম্প আমার প্রেসিডেন্ট নয়’ বলে স্লোগান দেয়।

তাদের এসব প্রতিবাদ-বিক্ষোভ যতদিন থাকবে ট্রাম্পকে নিয়ে আলোচনা-সমালোচনাও তত বেশি থাকবে। আর প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর তার কর্মপরিকল্পনা দেখে হয়তো মানুষ পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে, যে ট্রাম্পকে নিয়ে তারা ভয়ের মধ্যেই থাকবেন নাকি তার হাতে আমেরিকার রাষ্ট্র ক্ষমতা রেখেও নিরাপদবোধ করবেন।

রিলেভেন্ট এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি – ঠিকানা – YouTube.com/Bangladeshism

আপনার মন্তব্য
Previous এটা আবার কেমন গণতন্ত্র?
Next পাশার দান উল্টে যেতে পারে