মতিঝিলের রাস্তায় গাড়ি পার্কিং আর কতদিন
November 27, 2016
Bangladeshism Desk (767 articles)
Share

মতিঝিলের রাস্তায় গাড়ি পার্কিং আর কতদিন

রাজধানী ঢাকার যানজট মোকাবিলায় সরকারের পরিকল্পনার শেষ নেই। ফ্লাইওভার, মেট্রোরেল আরও কত কি হচ্ছে। কিন্তু বিদ্যমান ব্যবস্থায় বিরাজমান অনিয়ম ও ত্রুটিগুলো ক্ষতিয়ে দেখার যেন কেউ নেই।

এই যেমন মতিঝিলসহ বিভিন্ন এলাকার রাস্তায় গাড়ি পার্কিং নিয়মিত ঘটনা হলেও সেটা বন্ধে কার্যকর উদ্যোগ চোখে পড়ে না। সম্প্রতি প্রকাশিত এক সংবাদ থেকে জানা যায়, রাজধানীর মতিঝিল এলাকার বহুতল ভবনগুলোর বেশিরভাগেরই কার পার্কিং স্পেস নেই। যাও দু’য়েকটি ভবনের রয়েছে, সেগুলোও বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহার হচ্ছে। ওই এলাকার দৈনন্দিন প্রয়োজনে গাড়ি পার্কিংয়ের জন্য ফুটপাতই এখন তাদের শেষ ভরসা। ফলে মূল রাস্তা সংকুচিত হয়ে পড়ায়, যানজট সব সময় লেগেই থাকে।

এই সমস্যাটা শুধু মতিঝিলের নয়, ঢাকার অনেক স্থানেই এটা একটা কমন সমস্যা। বিভিন্ন স্থানে অপরিকল্পিতভাবে গড়ে ওঠা মার্কেটগুলোর আশেপাশের রাস্তাগুলোতেও অবাধে গাড়ি পার্কিং করে রাখতে দেখা যায়। এর ফলে ওইসব এলাকায় যানজট নিত্যদিনের সমস্যা হয়ে থাকলেও কোনো সমাধান যেন নেই।

এক হিসেবে দেখা গেছে, মতিঝিল-দিলকুশা বণিজ্যিক এলাকার ৯০ ভাগ ভবনেই কারপার্কিং স্পেস নেই। নকশা অগ্রাহ্য করে পার্কিং ছাড়াই এসব বহুতল ভবন গড়ে উঠেছে। অনুমোদিত নকশায় এসব বহুতল ভবন গড়ে উঠলেও নির্ধারিত পার্কিং স্পেস বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে। আর এ কারণে পুরো মতিঝিল-দিলকুশা এলাকায়ই এখন যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং করা হচ্ছে। এতে মারাত্মক ব্যাহত হচ্ছে এ বাণিজ্যিক এলাকার স্বাভাবিক কার্যক্রমে।

এক পরিসংখ্যানে বলা হয়েছে, মতিঝিলে বহুতলবিশিষ্ট ভবন রয়েছে ১৫৭টি। এর মধ্যে শুধুমাত্র ১৭টিতে আছে পার্কিং স্পেস। বাকি ১৪০টি ভবনেই গাড়ি রাখার কোনো ব্যবস্থা নেই। কারপার্কিং স্পেসে বিভিন্ন ধরনের অফিস, রেস্তোরাঁ এবং দোকানপাট তুলে বাণিজ্যিক কাজকর্ম পরিচালনা করা হচ্ছে।

আসলে রাজধানীর যানজট মোকাবিলায় ফ্লাইওভার, মেট্রোরেলের মতো বড় বড় প্রকল্প গ্রহণের যেমন প্রয়োজন রয়েছে, তেমনি বিদ্যমান অনিয়ম ও সমস্যাগুলো নিরসনেও নজর দেওয়ার প্রয়োজন। তা না হলে যত প্রকল্পই গ্রহণ এবং বাস্তবায়ন হোকনা কেন, তাতে আশানুরূপ সুফল পাওয়া যাবে না।

Latest Video Release

বাংলাদেশের টাইগারদের উৎসর্গ করে বাংলাদেশীজম প্রজেক্ট তৈরী করেছে একটি বিশেষ ভিডিও। নীচে ভিডিওটি দিয়ে দিলাম। দেখে ফেলুন।

আপনার মন্তব্য