আমেরিকান নির্বাচন নিয়ে এসব কী হচ্ছে?

42
SHARE

ইমরান সুমন : আমেরিকান নির্বাচন নিয়ে এসব কী হচ্ছে কিছুই বুঝতে পারছি না। সেদেশের গণমাধ্যম এবং নির্বাচনী পর্যবেক্ষণকারীরা সকালবিকাল যেসব জরিপের ফলাফল প্রকাশ করছে তাতে মাথা ঘুরে যাওয়ার যোগাড়। নির্বাচনের শেষ মুহুর্তে এসে কেউ হয়তো সকালে এক জরিপের ফলাফল প্রকাশ করে বলছেন যে, হিলারীকে টপকে গেছেন পাগলাটে ডোনাল্ড ট্রাম্প। কয়েক ঘণ্টা পরেই আবার অন্য কেউ আবার আরেক জরিপের ফল প্রকাশ করে বলছেনপাশার দান উল্টে দিয়ে আবার এগিয়ে গেছেন হিলারী!

দুই দলের নির্বাচনী প্রচারপ্রচারণা শুরুর প্রথম দিক থেকেই জনমতের উপর ভিত্তি করে পরিচালিত জরিপগুলোতে এগিয়ে ছিলেন। তাতে হয়তো ব্যবধান কিছুটা ওঠানামা করলেও ট্রাম্প পিছিয়ে ছিলেন সব সময়ই। কিন্তু নির্বাচনের শেষ মুহুর্তে এসে সে দেশের গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই যখন খেলোয়াড় হয়ে মাঠে নামল তখনই জরিপগুলোতে হিলারীর পতন দেখানো শুরু হলো।যদিও এফবিআইর এই ভূমিকা নিয়ে নৈতিকতার প্রশ্নও উঠেছে ইতোমধ্যে। তারপরও হিলারীর ইমেইল বিতর্ক থেকে সরতে চাইছে না তারা।

অন্যদিকে একই সময়ে এসে উইক্লিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ হিলারীর বিরুদ্ধে কিছু নতুন তথ্য বোমা ফাটিয়েছেন। অ্যাসাঞ্জ প্রকাশিত তথ্যে দাবি করা হয়েছে মধ্যপ্রাচ্যে দাপিয়ে বেড়ানো তথাকথিত জিহাদী গোষ্ঠী আইএসআই তৈরিতে ভূমিকা রেখেছিলেন হিলারী।পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকার সময় আইএসআই প্রতিষ্ঠার জন্য সৌদি আরব এবং কাতারের কাছ থেকে অর্থ কালেকশানও করেছিলেন হিলারী। দুটি ঘটনাই হিলারীর বিপক্ষে যাচ্ছে। আর একে কাজে লাগাতে মরিয়া হয়ে উঠেছে ট্রাম্প শিবির।

এর পরও প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মাত্র পাঁচ দিন আগে তিনটি প্রথম সারির মার্কিন সংবাদমাধ্যমের সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, মেল বিতর্ক পিছনে ফেলে ভোটে ফের এগিয়ে গেছেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী হিলারি ক্লিন্টন। তাদের সমীক্ষায় শতাংশের হিসেবে একটিতে হিলারি এগিয়ে রয়েছেন ৬% ভোটে। আর একটিতে ৫% ভোটে এবং অন্যটিতে ৩% ভোটে রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পকে পিছনে ফেলেছেন তিনি।

জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের কাজই হচ্ছে গোপন তথ্য ফাঁস করা, তাই তারা হিলারীর ব্যাপারে পাওয়া তথ্য বোমা ফাটাচ্ছেন মোক্ষম সময়েসে না হয় বুঝলাম। কিন্তু রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান এফবিআই কেন নির্বাচনের শেষ মুহুর্তে এসে ইমেইল কেলেঙ্কারি নিয়ে নতুন করে জল ঘোলা করতে মাঠে নামল তার কোনো আগামাথা বোঝা যাচ্ছে না। নাকি তারাও চাচ্ছেন না যে ধূর্ত হিলারী ক্ষমতায় আসুক, তার চেয়ে বরং ক্ষেপাটে ট্রাম্পই তাদের পছন্দ! আর সে কারণেই পরক্ষোভাবে আমেরিকান জনমতকে প্রভাবিত করতে এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন তারা?

আপনার মন্তব্য