ইংল্যান্ড ভুগছে “বাংলাদেশ” আতঙ্কে ! !

28
SHARE

হাসান শাহরিয়ার : মাত্র কয়েক দিন আগেই বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে ড্র করেছে ইংল্যান্ড। প্রথম টেস্টে বাংলাদেশ ২২ রানে হেরে গেলেও তার জন্য খুব একটা কৃতিত্ব দাবি করতে পারেনি অ্যালিস্টার কুকের ইংল্যান্ড দল। চট্টগ্রামের মাঠের ওই টেস্টে বাংলাদেশ দল ফিল্ডিংয়ের সময় বেশ কয়েকটি ক্যাচ মিস করার কারণে খেলার মোড় ঘুরে গিয়েছিল। সেই সাথে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটসম্যানরা খুব একটা দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে না পারায় শেষ পর্যন্ত তীরে এসে তরী ডুবেছিল বাংলাদেশের।
আর ঢাকা মিরপুর মাঠে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় টেস্টে দুর্দান্ত জয় পায় বাংলাদেশ। পাঁচ দিনের টেস্টের তৃতীয় দিনেই সাকিব আল হাসান ও মেহেদি হাসান মিরাজের স্পিনে বিধ্বস্ত হয় ইংল্যান্ড। এই পরাজয়ের কথা তাদের মনে রাখতে হবে অনেক দিন। কেননা, প্রথম টেস্টে কষ্টার্জিত জয় পেয়েও বলেছিল বাংলাদেশ এতটা লড়াই করতে পারবে বলে ভাবতে পারেনি তারা। কিন্তু দ্বিতীয় টেস্টে বাংলাদেশের দুর্দান্ত জয়ের পর তাদের মুখে বলার মতো তেমন কথাই যোগাচ্ছিল না।
সেই হারের ক্ষত নিয়েই ভারত সফরে বের হয় ইংলিশরা। কিন্তু সে দেশে গিয়েও বাংলাদেশ আতঙ্ক তাদের পিছু ছাড়ছে না। কারণ যে কোনো ম্যাচের আগেই উভয় দেশের খেলোয়াড় এবং ক্রিকেটকর্তারা পুরানো খেলার ভিডিও দেখে প্রতিপক্ষের দুর্বলতাগুলো খুঁজে বের করে নিজেদের প্রস্তুতি গ্রহণ করে। কিন্তু এবার নাকি ভারতীয়দেরকে পুরানো কোনো খেলার ভিডিও দেখার প্রয়োজনই পড়েনি। কারণ তাদের হাতের কাছেই ছিল আমাদের সাকিব এবং মিরাজের হাতে সদ্য পরাজিত ইংল্যান্ড দলের নাস্তানাবুদ হওয়ার ঘটনা। ভারতীয়রা সেই ভিডিও দেখেই ইংলিশবদের চূড়ান্ত প্রস্তুতি নিচ্ছে।
এদিকে আগামী ৯ নভেম্বর বুধবার ভারতের রাজকোটে প্রথম টেস্ট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। তার আগে এক সংবাদ সম্মেলনে ম্যাচ নিয়ে কথা বলেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক অ্যালিস্টার কুক। টেস্ট সিরিজ নিয়ে কথার পাশাপাশি উঠে আসে বাংলাদেশের কথা। কুক বলেন, ‘বাংলাদেশের ওই কন্ডিশনে আমরা খুব চাপে ছিলাম। ভারতের কন্ডিশনও অবশ্য একই রকম।’
তিনি জানিয়েছেন, বাংলাদেশের বিপক্ষে ঢাকা টেস্টে হারের ধাক্কাটা সামলে ওঠার চেষ্টা করে যাচ্ছে তার দল। রাজকোটে ৯ নভেম্বর ভারতের বিপক্ষে প্রথম টেস্ট শুরু হওয়ার আগেই সে ধাক্কা সামলানো যাবে। বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট দলটিতে বেশ কিছু পরিবর্তন নিয়েই মাঠে নামতে হচ্ছে কুকের। এটিও বড় চ্যালেঞ্জ, ‘আমাদের দল নির্বাচন নিয়ে বড় কিছু সিদ্ধান্ত নিতে হবে। ওই ধরণের দুটি ম্যাচ হয়ে যাওয়ার পর কিছু পরিবর্তন তো আপনাকে আনতেই হবে।’

তার মানে হলো ভারতে যাওয়ার পরও তাদের পিছু ছাড়ছে না বাংলাদেশ আতঙ্ক। বরং উভয় দেশই ছক আঁটছে বাংলাদেশের সিরিজকে ঘিরে অর্জিত অভিজ্ঞতা থেকেই।

আপনার মন্তব্য