বর্তমান বিশ্বের ‘বিস্ময় শিশু’ বাংলাদেশি সুবর্ণ

51
SHARE

ইশতিয়াক আহমেদ

আচ্ছা আপনাকে যদি প্রশ্ন করা হয়, তিন বছর বয়সের একটা শিশু কী কী করতে পারে তাহলে কী বলবেন? হয়তো বলবেন হাঁটা-চলা করতে পারবে, খেলাধূলা করবে, কিছু কথাও হয়তো গুছিয়ে বলতে পারবে। তার চেয়ে বেশি আর কী করতে পারবে?

কিন্তু আপনি যদি শুনেন যে ৩ বছর বয়সের কোনো একটি শিশু অংক, পদার্থ বিজ্ঞান এবং রসায়নে দক্ষতা দেখিয়ে সারা পৃথিবীকে নাড়িয়ে দিয়েছে, তাহলে আপনার কী অবস্থা হবে? মাথা ঘুরে যাবে নিশ্চয়ই। হ্যাঁ মাথা ঘুরিয়ে দেওয়ার মতোই ঘটনা এটি। আর সেটাই সম্ভব করেছে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শিশু সুবর্ণ!

তিন বছর বয়সেই গণিত, পদার্থবিদ্যা এবং রসায়নের ঝটিল সমস্যা সমাধান করে বিশ্বজোড়া খ্যাতি পেয়ে গেছে সুবর্ণ আইজ্যাক বারী নামের শিশুটি। অথচ, সে এখনও স্কুলেই ভর্তি হয়নি। তার দক্ষতায় মুগ্ধ হয়ে তাকে চিঠি লিখে অভিনন্দন জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ওবামা।

চিঠিতে বারাক ওবামা লিখেছেন, ‘প্রিয় সুবর্ণ, আশা করছি তুমি তোমার কঠোর পরিশ্রম এবং অর্জনের জন্য গর্ব অনুভব করো। তোমার মতো শিক্ষার্থী আমেরিকায় আরো দরকার, যারা স্কুলে কঠোর পরিশ্রম করার চেষ্টা করে, বড় স্বপ্ন দেখে এবং আমাদের সমাজের পরিবর্তন ঘটায়। আমাদের দেশ অনেক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়। কিন্তু আমরা যদি ঐক্যবদ্ধ হই তাহলে এসব মোকাবিলা করা কোনো ব্যাপারই নয়। তুমি তোমার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাও, আমি তোমার সঙ্গে আছি। তোমার কাছে আমি অনেক বড় কিছু প্রত্যাশা করি।

সুবর্ণর জন্ম যুক্তরাষ্ট্রে, ২০১২ সালের এপ্রিল। তার বাবা রাশীদুল বারী বাংলাদেশি, চট্টগ্রামে বাড়ি। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের একটি কলেজে শিক্ষকতা করছেন। সুবর্ণ তার কলেজ শিক্ষক বাবাকে চমকে দিয়েছিল ২০১৩ সালে এক বছর বয়েসেই। এক বছর বয়সী সুবর্ণ আইজ্যাক বারী নিউইয়র্কের একটি হাসপাতালের বেডে জ্বরে কাতরাচ্ছিল। তার বাবা রাশীদুল বারী বললেন, ‘আই লাভ ইউ মোর দ্যান এনিথিং ইন দ্য ইউনিভার্স সুবর্ণ বলল, ‘ইউনিভার্স অর মাল্টিভার্স?’

এক বছর বয়সী শিশুর কাছে ইউনিভার্স অর মাল্টিভার্সসম্পর্কে ধারণা থাকার আশা করা কীভাবে সম্ভব? যা নিয়ে বিজ্ঞানীরা এখনও কোনো কূলকিনারা করতে পারছেন না!

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত সুবর্ণর মেধা বিস্ময় সৃষ্টি করেছে সর্বত্র। যে এখনও স্কুলেই যায়নি, সে কীভাবে জ্যামিতি, বীজগণিতসহ রসায়নের জটিল বিষয়ের সহজ সমাধান দিচ্ছে। অক্ষর জ্ঞানের প্রাতিষ্ঠানিক কোনো প্রক্রিয়া অবলম্বন করা ছাড়াই কীভাবে সে ইংরেজী বই অবলীলায় পাঠ করছে?  

মাত্র দেড় বছর বয়সে রসায়নের পর্যায় সারণী সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা এবং তা মুখস্থ করে সুবর্ণ। স্কুলে ভর্তি না হয়েই সে ইংরেজি ভাষায় লেখা পদার্থবিদ্যা, রসায়ন এবং গণিত বই অবলীলায় পড়ছে, শুধু পড়ছে না, বরং সমস্যাগুলো অনুধাবন করে তা সমাধানও করছে!

কীভাবে সম্ভব এটি?

 রিলেভেন্ট এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি – ঠিকানা – YouTube.com/Bangladeshism

আপনার মন্তব্য