বাংলাদেশে সন্ত্রাসবাদের ঝুঁকি বাড়ার ইঙ্গিত

25
SHARE

বাংলাদেশে সন্ত্রাসবাদের ঝুঁকি বাড়ার ইঙ্গিত দিয়েছে একটি আন্তর্জাতিক সূচক। সূচকটি করা হয়েছে ২০১৫ সালে ঘটে যাওয়া ঘটনাগুলোকে বিশ্লেষণ করে। বলা হয়েছে যে, গত দেড় দশকের মধ্যে ২০১৫ সালে দেশে সর্বোচ্চ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে।

ফলে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ সূচকেও ওপরের দিকে উঠে এসেছে বাংলাদেশের নাম। ২০১৫ সালে সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ২৫তম। এবার সেটা উঠে এসেছে ২২তম স্থানে। বিষয়টি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আমাদের দেশের ভাবমর্যাদাকে ক্ষুণ্ন করেছে এতে সন্দেহ নেই।

আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ সূচক প্রকাশ করে অস্ট্রেলিয়ার সিডনিভিত্তিক আন্তর্জাতিক গবেষণা সংস্থা ইন্সটিটিউট ফর ইকোনোমিক্স অ্যান্ড পিস। সূচকে এভাবেই তুলে ধরা হয়েছে বাংলাদেশের পরিস্থিতি। চার বছর ধরে সূচক প্রকাশ করছে সংস্থাটি। ১৬ নভেম্বর বুধবার এবারের সূচক প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হয়

আমরা আশঙ্কা করছি, ২০১৬ সালের গুলশান হলি আর্টিজান রেস্টুরেন্ট, শোলাকিয়া মাঠের ঘটনাসহ পরবর্তী ঘটনাগুলো যদি বিবেচনায় নিয়ে আগামী বছর আবার কোনো সূচক প্রকাশ করা হয় তাহলে হয়তো আমাদের অবস্থান আরও খারাপের দিকেই যাবে। তবে আশার কথা হচ্ছে, আমাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ইতোমধ্যে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের শিকড় উপড়ে ফেলতে পেরেছে।

খবরে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালে বিশ্বজুড়ে সংঘটিত সন্ত্রাসী হামলার ওপর ভিত্তি করে এবারের সূচকটি তৈরি করা হয়েছে। এতে ১০ পয়েন্টের মধ্যে দশমিক ৯৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে ইরাক। গতবছর সংঘটিত সন্ত্রাসী হামলার ২০ শতাংশই ঘটেছে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটিতে। টপ টেনে থাকা বাকি দেশগুলো হচ্ছে যথাক্রমে আফগানিস্তান, নাইজেরিয়া, পাকিস্তান, সিরিয়া, ইয়েমেন, সোমালিয়া, ভারত, মিসর লিবিয়া।

২০১৫ সালকে বাংলাদেশের জন্য একটি কঠিন বছর হিসেবে আখ্যায়িত করেছে ইন্সটিটিউট ফর ইকোনোমিক্স অ্যান্ড পিস। সংস্থাটির হিসাবে গতবছর বাংলাদেশে মোট ৪৫৯টি সন্ত্রাসী হামলা চালানো হয়। এতে নিহত হন ৭৫ জন।

দুনিয়াজুড়ে সংঘটিত মোট সন্ত্রাসী হামলার ১৪ শতাংশ ঘটেছে আফগানিস্তানে, শতাংশ পাকিস্তানে এবং ভারতে ঘটেছে শতাংশ। আর বাংলাদেশে সংঘটিত হয়েছে মোট সন্ত্রাসী হামলার শতাংশ

যে কোনো মূল্যেই হোক, আমাদেরকে এই অপবাদের কলঙ্ক মুছতে দ্রুত উদ্যোগ নিতে হবে। কেননা, আমাদের এই সোনার বাংলাদেশ বিশ্বে যখন উন্নয়নের মডেল হিসেবে আখ্যায়িত হচ্ছে, ঠিক তখন কিছু সন্ত্রাসীর কর্মকাণ্ডের কারণে সেই ভাবমর্যাদা নষ্ট হতে দেয়া যায় না।

রিলেভেন্ট এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি – ঠিকানা – YouTube.com/Bangladeshism

আপনার মন্তব্য