কলকাতার পর ভূতের তাণ্ডব মুর্শিদাবাদে

41
SHARE

আশরাফুল আলম

গত কয়েক দিন আগে বাড়িতে রাতের খাবার খেতে বসেছিল পশ্চিমবঙ্গের কলকাতার এয়ারপোর্ট থানা এলাকার বাসিন্দা মনতোষ মজুমদারদের গোটা পরিবার। এমন সময় তিনতলা থেকে বিকট শব্দ। প্রথমে ভাবা হয়েছিল, ঘরে চোর ঢুকেছে বুঝি। কিন্তু না! দ্রুত সেখানে গেলেও কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। শুধু ঘরের আসবাব ওলটপালট। আর অচেনা একটা গন্ধের সঙ্গে মনে হলো একটা ছায়ামূর্তি যেন অন্ধকারে মিশে গেল।

Latest Video Release

বাংলাদেশের টাইগারদের উৎসর্গ করে বাংলাদেশীজম প্রজেক্ট তৈরী করেছে একটি বিশেষ ভিডিও। নীচে ভিডিওটি দিয়ে দিলাম। দেখে ফেলুন।


এ ঘটনা শুধু মজুমদারের পরিবারের সদস্যরা দেখছেন, তেমনটি নয়। প্রতিবেশীরাও দেখেছেন নানা ভৌতিক ঘটনা। দরজায় লাগানো তালা হঠাৎ খুলে যাচ্ছে বিকট শব্দে, হঠাৎ ছিটকে পড়ছে টেলিভিশন। ভেঙে পড়ছে জানালার কাচ এবং দেয়ালে টানানো ছবি পড়ে যাচ্ছে মাটিতে। দিনের বেলা পুড়ে যাচ্ছে জামাকাপড়। কিন্তু কোথাও কেউ নেই। শুধু চোখের পলক ফিরলেই একটা ছায়ামূর্তি ঘরের এপাশ থেকে ওপাশে ছুটে যাচ্ছে। আর সন্ধ্যা নামলে ওই বাড়ির সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ছে আতঙ্ক।

সেই ঘটনার কূল-কিনারা হওয়ার আগেই শোনা গেল আরেক খবর। মুর্শিদাবাদের একবাড়িতে ভৌতিক আগুন লাগার খবর দিয়েছে সেদেশরই ‘এবেলা’ নামের একটি অনলাইন মিডিয়া। সেখানে বলা হয়েছে, ঘরে থাকলেই রক্ষে, আর না থাকলেই দাউ দাউ করে জ্বলে উঠছে ঘরের আসবাব, বিছানা, টেবিল ফ্যান থেকে জামাকাপড়। পশ্চিম মেদিনীপুরের কোতোয়ালি থানার নয়াগ্রামের পরে এবারে রহস্যময় আগুনে আতঙ্ক ছড়িয়েছে মুর্শিদাবাদের জিয়াগঞ্জ-আজিমগঞ্জ পুরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের সাহাপাড়ায়। এরই মধ্যে চার ধরে দফায় দফায় রহস্যজনক ভাবে আগুন লাগছে সাহাপাড়ার বাসিন্দা প্রণব দাসের বাড়িতে। রহস্যময় ভৌতিক আগুনে ইতিমধ্যেই পুড়ে গিয়েছে আলমারি, চেয়ার-সহ বেশ কিছু আসবাবপত্র, টেবিল ফ্যান, বিছানা, জামাকাপড় এবং নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র।

আগুন আতঙ্কে ঘর ছেড়েছেন প্রণববাবুর পরিবার। এখন দিনরাত জেগে বারান্দায় বসে বাড়ি পাহারা দিচ্ছেন প্রণববাবু। এদিকে বিদ্যুৎ সরবরাহ দফতর ও পুলিশকে বিষয়টা জানালেও কেউ কোনও পদক্ষেপ নেয়নি বলে অভিযোগ প্রণববাবুর।

বিজ্ঞান তো ভূত বিশ্বাস করে না। কিন্তু এসব ভৌতিক কাণ্ডেরও তো কোনো ব্যাখ্যা পাওয়া যাচ্ছে না। তাহলে আতঙ্কিত মানুষজন যাবে কোথায়?

আপনার মন্তব্য