পরিবেশবান্ধব কারখানা গড়ায় সবার শীর্ষে বাংলাদেশ


উন্নয়ন-অগ্রগতিসহ নানা সেক্টরেই বাংলাদেশ এখন বিশ্বের অনুকরণীয়। জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকি মোকাবিলায় আমাদের অর্জন যেমন ঈর্ষণীয়, তেমনি প্রাকৃতিক দুর্যোগ এবং দুযোর্গ পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবিলাতেও অনুসরনীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। পরিবেশ সচেতনতা তৈরিতেও এগিয়ে আছে বাংলাদেশ।

শুধু সরকারি পর্যায়েই নয়, বেসরকারি খাতেও পরিবেশ সচেতনতা বাড়ছে বাংলাদেশে। আর সে কারণেই পরিবেশবান্ধব শিল্পকারখানা গড়ার এক নীরব প্রতিযোগিতা হচ্ছে। তারই স্বীকৃতি মিলেছে আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও।

যুক্তরাষ্ট্রের ইউএস গ্রিন বিল্ডিং কাউন্সিল (ইউএসজিবিসি) ‘লিড’ নামে পরিবেশবান্ধব স্থাপনার সনদ দিয়ে থাকে। তাদের বিবেচনায় সর্বোচ্চ নম্বর পেয়ে শীর্ষ ১০–এ স্থান পাওয়া বিশ্বের ২৫টি পরিবেশবান্ধব শিল্প স্থাপনার মধ্যে আছে বাংলাদেশের সাতটি।

জানা গেছে, বাংলাদেশের তৈরি পোশাকশিল্পের মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর অনুরোধে সম্প্রতি বিশ্বের পরিবেশবান্ধব শিল্প স্থাপনার একটি তালিকা পাঠিয়েছে ইউএসজিবিসি। তাতেই দেখা গেছে, ১১০ নম্বরের মধ্যে সর্বোচ্চ ৯৭ পেয়ে বিশ্বের শীর্ষ পরিবেশবান্ধব শিল্পকারখানা হয়েছে নারায়ণগঞ্জের আদমজী রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকার (ইপিজেড) রেমি হোল্ডিংস নামের পোশাক কারখানা। ৯২ নম্বর পাওয়া দ্বিতীয় শীর্ষ অবস্থানে আছে নারায়ণগঞ্জের প্লামি ফ্যাশনস। কারখানাটিতে নিট পোশাক উৎপাদন করা হয়।

৯০ নম্বর পেয়ে যৌথভাবে তৃতীয় অবস্থানে আছে আয়ারল্যান্ডের একটি শিল্পকারখানা ও বাংলাদেশের ভিনটেজ ডেনিম স্টুডিও। ৮৬ নম্বর পেয়ে চতুর্থ অবস্থানে আছে ইতালির বত্তেগা ভেনতা আর্টিলার ও যুক্তরাষ্ট্রের মেথড প্রোডাক্টস পিবিসি।

ময়মনসিংহের ‘এসকিউ সেলসিয়াস ২’ ৮৫ নম্বর পেয়ে আছে পঞ্চম স্থানে। ৮৪ নম্বর নিয়ে ষষ্ঠ অবস্থানে ভিয়েতনামের এফজিএল-তান পু এক্সপানশন। ৮৩ নম্বর পেয়ে সপ্তম অবস্থানে আছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রিন্সটেল। ৮২ নম্বর পেয়ে অষ্টম অবস্থানে আছে চীনের ফক্সকন গুজিহুউ।

৮১ নম্বর নিয়ে বাংলাদেশ, চীন, তাইওয়ান ও মেক্সিকোর ১০টি স্থাপনা সম্মিলিতভাবে নবম স্থানে আছে। এর মধ্যে বাংলাদেশের তিনটি পোশাক কারখানা—জেনেসিস ওয়াশিং, এসকিউ কোলব্লেনস ও এসকিউ বিরিকিনা। আর ৮০ নম্বর নিয়ে দশম অবস্থানে সম্মিলিতভাবে আছে জার্মানি, যুক্তরাষ্ট্র ও চেক রিপাবলিকের তিনটি শিল্প স্থাপনা।

বিশ্ব এবার তাকিয়ে দেখুক, বাংলাদেশ কী পারে! পরিবেশবান্ধব আগামী গড়তে এখন তাদের পাঠ নিতে হলে আসতে হবে এই বাংলাদেশেই।

Latest Video Release

বাংলাদেশের টাইগারদের উৎসর্গ করে বাংলাদেশীজম প্রজেক্ট তৈরী করেছে একটি বিশেষ ভিডিও। নীচে ভিডিওটি দিয়ে দিলাম। দেখে ফেলুন

আপনার মন্তব্য
Previous ভারত কি আমাদের তিস্তা চুক্তির লোভ দেখাচ্ছে
Next মাটির ব্যাংকের কয়েনগুলো কী কেজির মাপে বেচতে হবে