প্রধানমন্ত্রীর সময়োচিৎ সিদ্ধান্তে ধাক্কা খেল ভারতীয় চ্যানেলগুলো
December 3, 2016
Bangladeshism Desk (754 articles)
Share

প্রধানমন্ত্রীর সময়োচিৎ সিদ্ধান্তে ধাক্কা খেল ভারতীয় চ্যানেলগুলো

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ২ ডিসেম্বর শুক্রবার রাত থেকে বাংলাদেশে সম্প্রচারিত বিদেশি চ্যানেলের বাংলাদেশ ফিডে দেশি বিজ্ঞাপন সম্প্রচার বন্ধ হয়েছে বলে জানিয়েছেন মিডিয়া ইউনিটির উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। সরকার শিগগিরই বিজ্ঞাপন সম্প্রচার নীতিমালা ও আইন করতে যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

একই অনুষ্ঠানে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও সংস্কৃতিরক্ষায় সবার ঐক্য ধরে রাখার তাগিদ দিয়েছেন বেসরকারি টেলিভিশন মালিকদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব টেলিভিশন চ্যানেল ওনার্সের (অ্যাটকো) প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ মোসাদ্দেক আলী। শনিবার রাজধানীর ঢাকা ক্লাব মিলনায়তনে মিডিয়া ইউনিটি আয়োজিত আলোচনা সভায় তাঁরা এসব কথা বলেন।

ঘটনা হচ্ছে, বাংলাদেশের দর্শকদের আকৃষ্ট করে ভারতীয় টিভি চ্যানেলগুলো একটি ফাঁকিবাজির ব্যবসা ফেঁদেছিল। ফাঁদটা হলো, বাংলাদেশের বিজ্ঞাপনদাতারা যখন দেখলেন এদেশের দর্শকরা ভারতীয় চ্যানেলগুলোতে আসক্ত, তাই বিজ্ঞাপনগুলো ভারতীয় চ্যানেলগুলোতে দিতে শুরু করলেন।

তারা ভাবলেন, সেখানে অ্যাড দিলে এক ঢিলে দুটি লাভ। বাংলাদেশি দর্শকদের তো পাচ্ছেনই, ‍উপরি হিসেবে পাচ্ছেন ভারতীয় দর্শকদেরও। এই ফাঁদে পড়ে তারা যখন ভারতমুখী হলেন, তখনই জানা গেল আরেক তথ্য।

ভারতীয় চ্যানেলগুলো আসলে ফাঁকি দিচ্ছে। তারা বাংলাদেশি বিজ্ঞাপনগুলো ভারতীয়দের দেখাচ্ছে না, বরং দেখাচ্ছে শুধু বাংলাদেশিদের। বিশেষ ব্যবস্থায় তারা বিজ্ঞাপন প্রচারের সময় বাংলাদেশ ফিডে দেশীয় পণ্যের বিজ্ঞাপন প্রচার করেছে, অন্যদিকে ভারতীয়দের জন্য প্রচার করছে ভারতীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর বিজ্ঞাপন!

এতে একদিকে বাংলাদেশি বিজ্ঞাপন দাতাদের টাকা যেমন ভারতে চলে যাচ্ছিল, অন্যদিকে তারা টাকা দিয়েও ভারতীয় দর্শকদের মাঝে প্রচার পাওয়া থেকেও বঞ্চিত হচ্ছিল। এর আরও একটা ক্ষতিকারক দিক হচ্ছে, বাংলাদেশি টিভি চ্যানেলগুলোর বিজ্ঞাপন কমে যাচ্ছিল। ফলে হুমকির মুখে ছিল বাংলাদেশের টিভিগুলো।

বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশের চ্যানেলগুলোর মালিক পক্ষও সরব হয়েছেন। বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে বিজ্ঞাপনের বাজার সংকুচিত হয়ে যাওয়ায় আন্দোলনে নামেন টেলিভিশন চ্যানেলের মালিক, কর্মকর্তা ও কলাকুশলীদের সমন্বয়ে গঠিত সংগঠন মিডিয়া ইউনিটি। তারা মিটিং, মিছিল ও সমাবেশ করে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। তারই প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপরোক্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

আর প্রধানমন্ত্রীর সময়োচিৎ সিদ্ধান্তে বাংলাদেশের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার পথ বন্ধ হলো ভারতীয় চ্যানেলগুলোর জন্য। আশা করি, ভারতীয় টিভিগুলোর বাংলাদেশে একচেটিয়াভাবে সম্প্রচার বন্ধের ব্যাপারেও প্রধানমন্ত্রী শীঘ্রই সিদ্ধান্ত নেবেন। তাহলেই ভারত বাধ্য হবে, আমাদের টিভিগুলোকে তাদের দেশে সম্প্রচারের পথ উন্মুক্ত করতে।

Latest Video Release

বাংলাদেশের টাইগারদের উৎসর্গ করে বাংলাদেশীজম প্রজেক্ট তৈরী করেছে একটি বিশেষ ভিডিও। নীচে ভিডিওটি দিয়ে দিলাম। দেখে ফেলুন

আপনার মন্তব্য