মাটির ব্যাংকের কয়েনগুলো কী কেজির মাপে বেচতে হবে

সোহেল হাবিব

খবরে দেখলাম, ইমাম সাহেব মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে বলেছেন- দান হিসেবে পয়সা বা কয়েন মসজিদে না দিতে। কারণ কয়েন বা পয়সা এখন আর দোকানিরা নিতে চায় না। এমনকি এসব কয়েন ব্যাংকগুলোও রাখছেন না। তাই কয়েন নিয়ে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

শুক্রবার জুম্মা নামাজের খুতবাহ্ শুরু হওয়ার আগে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া পৌরশহরের এক মসজিদে ইমাম সাহেব বলেছেন, প্রিয় মুসল্লি বাবা ও ভাইয়েরা, আপনারা যারা মসজিদে দানবাক্সে মুক্তহস্তে দান করবেন তারা দয়া করে পয়সা বা কয়েন দিবেন না।

আল্লাহর ঘর মসজিদে কেউ দান করলে টাকা দিয়েন। আল্লাহ রাব্বুল আলামিন আপনাদের সবাইকে টাকা দেওয়ার তাওফিক দান করুন, আমিন।

কয়েক দিন আগের আরেক খবরে বলা হয়েছিল, বাংলাদেশ ব্রেড, বিস্কুট অ্যান্ড কনফেকশনারি প্রস্তুতকারক সমিতি রংপুর বিভাগীয় শাখা রাস্তায় কয়েন ঢেলে দিয়ে এক অভিনব প্রতিবাদ করেছে।

এ সময় সেখানকার বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে সড়কে প্রতীকী কবর রচনা করে তাতে একজন বিক্ষোভকারী শুয়ে পড়েন। অন্যরা তখন তাঁর উপর কয়েন ঢেলে দিয়ে বিক্ষোভ করেন।

কারণ হিসেবে তারা বলেছেন, তফসিলি ব্যাংকগুলো সরকারি নির্দেশ উপেক্ষা করে ধাতব মুদ্রা গ্রহণ না করায় তারা বিপাকে পড়েছেন।

এর আগে যশোহরসহ আরও কয়েকটি স্থানে কয়েন নিয়ে বিপাকে পড়ায় ব্যবসায়ীরা প্রতিবাদ করেছেন।

শুধু তাই নয়, আজকাল বাস ভাড়া দিতে গিয়েও দেখি কয়েন নিয়ে ঝামেলা হচ্ছে। এমনকি কোনো কোনো ভিক্ষুকও কয়েন নিতে চাইছে না।

এদিকে ঘরে আবার গিন্নি মাটির ব্যাংকে কয়েন জমিয়ে রাখছে। এখন এসব জমানো কয়েন দিয়ে কী করব- সেটাই ভাবছি? শেষ পর্যন্ত কেজির দরে বিক্রি করতে হয় কিনা কে জানে?

মনে হচ্ছে, গণনা করে সংরক্ষণ করাটাকে তফশিলি ব্যাংকগুলো সময়সাপেক্ষ ভাবছে, তাই তারা কয়েন নিতে চাইছে না। আর তার প্রভাব পড়ছে বাজারে। অনেকেই ভাবছেন, তাহলে হয়তো কয়েনগুলো অচল বা অকেজো হয়ে গেছে বা যে কোনো সময় অচল হয়ে যেতে পারে। তাই অনেকেই কয়েন এড়িয়ে চলছেন।

যার অনিবার্য পরিণতি হচ্ছে, বর্তমান অবস্থা।

কারণ যাইহোক, এটাকে মেনে নেওয়া যায় না। আইন অনুযায়ী তারা সরকারের প্রচলিত কয়েনগুলো গ্রহণে বাধ্য। এ ক্ষেত্রে গড়িমশি করে নাগরিকদের ভোগান্তিতে ফেলার অধিকার তাদের নেই।

আশা করি, অর্থমন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃপক্ষ বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে দেখবেন।

Latest Video Release

বাংলাদেশের টাইগারদের উৎসর্গ করে বাংলাদেশীজম প্রজেক্ট তৈরী করেছে একটি বিশেষ ভিডিও। নীচে ভিডিওটি দিয়ে দিলাম। দেখে ফেলুন

আপনার মন্তব্য
(Visited 1 times, 1 visits today)

About The Author

Bangladeshism Desk Bangladeshism Project is a Sister Concern of NahidRains Pictures. This website is not any Newspaper or Magazine rather its a Public Digest to share experience and views and to promote Patriotism in the heart of the people.

You might be interested in