দ্যা চিটাগাং ড্রিমস! – আসছে……

86
SHARE

এবছরের জানুয়ারীর ১ তারিখ থেকে অনেকেই অনলাইনে শূনে আসছেন একটি নাম বা লাইন – দ্যা চিটাগাং ড্রিমস। বিশেষ করে যারা বাংলাদেশীজম প্রজেক্টের সাথে কোন না কোনভাবে সংযুক্ত। ১লা জানুয়ারী বাংলাদেশীজম প্রজেক্ট থেকে নতুন এই প্রজেক্টের কথা ঘোষনা করা হয়েছিল ছোট্ট একটি ফেসবুক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে। কিন্তু তেমন বেশী কিছু বলা হয়নি। কিন্তু দেখতে দেখতে প্রায় ৩ মাস চলে গেল আর চিটাগাং ড্রিমস এর প্রস্তুতি পর্ব প্রায় শেষের পথে। আর সেই সাথে অল্প কিছুদিনের মধ্যেই শুরু হতে যাচ্ছে – দ্যা চিটাগাং ড্রিমস!

তো কি এই চিটাগাং ড্রিমস বা Chittagong Dreams? 

Well, এটি আমাদের একটি ড্রিম প্রজেক্ট বলা যেতে পারে। যার শুরু অনেক আগেই হয়েছিল। এমনকি বাংলাদেশীজম প্রজেক্টও কোন না কোনভাবে এই প্রজেক্টের সাথে শুরু থেকেই আস্টেপৃষ্টে জড়িয়ে ছিল। অনেকেই হয়তো খেয়াল করেছিলেন, বাংলাদেশীজম প্রজেক্টের একেবারে শুরুর দিকে আমরা চট্টগ্রাম নিয়ে অনেক কিছু বলতাম বা করতাম। সবসময় বলতাম, চট্টগ্রাম থেকে দেশব্যাপী কোন প্লাটফর্ম থাকবে। থাকবে পুরো বাংলাদেশকে রিপ্রেজেন্ট করার একটা উপায়। সেই সাথে দেশকে দেখানো। বাংলাদেশের পজিটিভ দিকগুলোকে দেখানোর এইম নিয়েই কিন্তু শুরু হয়েছিল বাংলাদেশীজম প্রজেক্ট। আর এখন বাংলাদেশীজম প্রজেক্টের ফলোয়ার ১০ লক্ষেরও উপরে। আর চিটাগাং ড্রিমস কোন না কোন ভাবে এর সাথে জড়িত। মূলত, চিটাগাং ড্রিমস হলো বাংলাদেশীজম প্রজেক্টের “সেকেন্ড ফেইজ” বা ২য় স্তর এবং এই প্রজেক্ট দিয়ে বাংলাদেশীজমের পরের লেভেলের কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। যা প্রথমে চট্টগ্রাম থেকে এবং সময় দেশব্যাপী হবে যদি গনমানুষের গ্রহনযোগ্যতা থাকে।

“দ্যা চিটাগাং ড্রিমস” মুলত হতে যাচ্ছে একটি বিশেষ ধরনের রিয়েলিটি ডকুমেন্টারী শো। তবে এটিকে পুরোপুরি প্রামান্য চিত্র বলা যাবেনা আবার বলা যাবে না একেবারে রিয়েলিটি শো। এতে কোন ফিকশন বা কিছুই নেই। এটি এমন ধরনের ভিডিও সিরিজ যাকে আমরা নিজেরাই কোন ক্যাটাগরীতে ফেলতে পারছি না আপাতত। হয়তো নতুন কোন ক্যাটাগরী তৈরী করতে হবে। এই “চিটাগাং ড্রিমস” মুলত ৫০টি পর্বে বিভক্ত থাকবে। আর সামান্য সাধারন কোন ভিডিও না। দেশকে নতুন দেখানোর জন্য বিশেষ কিছু ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। আসলে, এই প্রজেক্ট শুরু করার জন্য অনেক দিন অপেক্ষা করতে হয়েছে। ৫০ পর্বের এই ভিডিও সিরিজ প্রথমে চট্টগ্রাম শহরকে, চট্টগ্রাম শহরের লাইফ-স্টাইল, হাসি কান্না, ঐতিহ্য, পর্যটন, তারুন্য, ব্যবসা-বাণিজ্য – সবকিছুকে একেবারে নতুন মোড়কে সামনে নিয়ে আসবে যা আগে কেউ চেষ্টা করেনি। না, সাধারন তথ্যমূলক কোন প্রামান্য চিত্র না। এই ভিডিও সিরিজের ওয়ার্কফ্লো তৈরী করতে রীতিমত গবেষনা করতে হয়েছে। এমন কিছু যা আপনাদের অর্থাৎ এই সিরিজের দর্শকদের পূর্নাঙ্গ অংশগ্রহন থাকবে। দেশকে দেখানো হবে পুরো বিশ্বের কাছে, তবে একটু স্টাইলে, একটু রঙে।

চিটাগাং ড্রিমস নামটা আসলে অনেকটা মেটাফোর এর মত এই প্রজেক্টে। আর এক সময় এই চিটাগাং ড্রিমস আসলে সমগ্র বাংলাদেশের ড্রিমে পরিণত হবে – অন্তত এটাই আমাদের মূল ইচ্ছা। প্রতিটি পর্বেই থাকবে নতুন কিছু আর থাকবে কিছু ওয়াও ফ্যাক্টর। কিন্তু মিল থাকবে আপনার – আমার মত সাধারন মানুষের জীবনের সাথে। জীবন যাত্রার সাথে। বাংলাদেশ ফেলে দেয়ার মত কোন দেশ না – বিশ্বের বুকে মাথা উচু করে দাঁড়ানো একটি দেশ, যে যাই বলুক না কেন – এই থিমটাই আমাদের এই প্রজেক্টের মুল ব্যাপার। কিন্তু মানুষকে বোর করার জন্য এই প্রজেক্ট না। দর্শকদের উপভোগ করার জন্যই প্রজেক্ট। আর চট্টগ্রাম থেকেই পুরো প্রজেক্টটা করার কারনে আসলে তেমন কোন স্পন্সর নাই যে কারনে আমাদের কাজের গতি একটু ধীর ছিল। তবে কস্ট করলে নাকি কেস্ট মেলে। আশা করি চিটাগাং ড্রিমস সে ধরনের কোন উদাহরন হবে।

পুরো সিরিজটি পরিচালনা করছে নাহিদরেইন্স

এই ভিডিও সিরিজটি রিলিজ করা হবে বিশ্বখ্যাত Netflix এ। বাংলাদেশের বাইরের মানুষের জন্য অর্থাৎ বিদেশীদের জন্য যেখানে তারা হয়তো কিনে দেখবেন। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষের জন্য এই সিরিজটি বিনামুল্যে ইউটিউবে ছাড়া হবে। যা শুধু বাংলাদেশ থেকেই দেখা যাবে। রিলিজ করা হবে আমাদের অফিশিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে। এখন পর্যন্ত আমাদের হাতে কোন তারিখ নেই তবে আশা করা যাচ্ছে এই মাসের কোন এক দিনে প্রথম পর্ব রিলিজ করা হবে। আর রিলিজের তারিখ আমাদের ইউটিউব চ্যানেলের কোন একটি ভিডিও আপডেটে জানিয়ে দেয়া হবে। দেরী না করে আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি আজই সাবস্ক্রাইব করে রাখুন – লিঙ্ক দিয়ে দিচ্ছি – Youtube.com/Bangladeshism। আর এই প্রজেক্টের একটি আলাদা ফ্যান পেজ আছে, যদি নিয়মিত আপডেট চান আর বিহাইন্ড দ্যা সিন ছবি দেখতে চান অথবা গর্বিত স্পন্সর হতে চান, তাহলে পেজে যোগাযোগ করতে পারেন বা লাইক দিয়ে রাখতে পারেন। লিংক – Facebook.com/CtgDreams.

আশা করি শীঘ্রই দেখতে পাবেন।

আপনার মন্তব্য