সভ্য দেশে চরম অসভ্য আচরন!

113
SHARE

সারা বিশ্বের স্যোশাল নেটওয়ার্ক, টিভি এবং নিউজ মিডিয়াতে তীব্র নিন্দার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে আমেরিকাইয় হওয়া একটি ঘটনার। ইউনাইটেড এয়ারলাইন্স প্রতিষ্ঠানটি এমনিতেই যথেষ্ট কুখ্যাত যাত্রীদের প্রতি তাদের খারাপ আচরনের জন্য। কিন্তু এবার তাদের অসদাচরন একেবারে অন্যরকম উচ্চতায় পৌছে গেছে যেন! মিডিয়া রীতিমত তাদের এই কাজকে পৈশাচিক বলেই জানান দিচ্ছে।

গত রবিবার ইউনাইটেড এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট থেকে একজন যাত্রীকে জোর পূর্বক বিমান থেকে নামিয়ে দেয়া হয় গায়ের জোরে। যাত্রীকে রীতিমত রক্তাক্ত করে ফেলা হয়। কেন জানেন কি? সেই যাত্রীর কোন দোষই ছিল না। উক্ত ফ্লাইটটি ধারন ক্ষমতার চাইতে বেশী টিকিট বিক্রি করে। এক পর্যায়ে এয়ারলাইনের কিছু কর্মীর ভ্রমনের জন্য তাদের ৪ টি সিট বাতিল করার প্রয়োজন হয়। প্লেনে যাত্রীরা উঠার পর তারা যাত্রীদের অনুরোধ করে যেকোন ৪ জন যাত্রী স্বেচ্ছায় প্লেন থেকে নেমে যাবে কিনা। কিন্তু কেউ রাজী হয়নি। তাই জোর করে বের টেনে হিচড়ে বের করা হয় এক এশিয়ান ডাক্তারকে – রীতিমত রক্তাক্ত করে। কারন – এয়ারলাইনের কিছু কর্মীর জরুরী ভ্রমন করা প্রয়োজন। সেই এশিয়ান যাত্রী কিন্তু ঠিকই টিকিট কিনে প্লেনে উঠেছে এবং লুইসভিলে এই ডাক্তারের জন্য কিছু রোগী অপেক্ষাও করছিল। উল্লেখ্য শিকাগো থেকে বিমানটি লুইসভিল যাচ্ছিল। প্লেনের অনেক যাত্রী পুরো ব্যাপারটি ভিডিও করে ফেলে এবংপরবর্তীতে সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপারটি ভাইরাল হয়ে যায়। ইউনাইটেড এয়ারলাইন আগেও এধরনের অনেক কর্মকান্ড করেছে কিন্তু এবার বাড়াবাড়ি বেশ বড় রকমের করে ফেলেছে আর বিপদে পড়েছে।

বিশবব্যাপী এই ইউনাইটেড এয়ারলাইন এখন বয়কট করার কথা বলছে তাদের নিয়মিত যাত্রীরা। সাধারন মানুষ হতে শুরু করে সেল্ব্রিটি – এ ঘটনায় সবাই ক্ষুব্ধ আর ইউনাইটেড এয়ারলাইন ব্র্যান্ডেল দুর্নাম সবচেয়ে খারাপ এখন সবচেয়ে খারাপ পর্যায়ে পৌছেছে আর এই PR Nightmare সামলাতে রীতিমত হিমশিম খাচ্ছে এই এয়ারলাইনটি। সভ্য দেশে এমন অসভ্য আচরন আসলেই দুঃখজনক। আমেরিকা আসলেই বিদেশীদের জন্য মনে হয় অনিরাপদ হয়ে উঠছে।

 

আপনার মন্তব্য