সাজেক : এক খন্ড মেঘের রাজ্য

111
SHARE

একটা প্রশ্ন করি, আচ্ছা বলুন তো বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় ইউনিয়ন কোনটি?
কি, পারলেন না? সমস্যা নেই ,আমি বলে দিচ্ছি।বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় ইউনিয়ন সাজেক। রাঙ্গামাটি জেলার সাজেক ইউনিয়ন। কমলা চাষের জন্য বিখ্যাত সাজেক।বাংলাদেশের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের মিজোরাম সীমান্ত থেকে মাত্র ১০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। বর্তমানে বাংলাদেশের যে কয়েকটি স্থান পর্যটকদের কাছে প্রিয় ,তার মধ্যে অন্যতম হলো সাজেক। সাজেক ইউনিয়নের ‘রুইলুই ‘ ও ‘কংলাক পাড়াই’ স্হান দুটি পর্যটকদের মূল আকর্ষণ যা সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৮০০ ফুট উঁচুতে অবস্থিত।
আমি সাজেককে বলি ‘মেঘের রাজ্য’।
মেঘ যেন তার পশরা সাজিয়ে আপনাকে স্বাগতম জানাতে উন্মুখ হয়ে আছে। মেঘবালিকার সংগে লুকোচুরি খেলার সুন্দর সময় বর্ষাকাল।
ঢাকা থেকে সরাসরি বাসে খাগড়াছড়ি, খাগড়াছড়ি থেকে চান্দের গাড়ি করে সাজেক। সাজেক যাওয়ার জন্য আপনাকে অবশ্যই সকাল ১০ টার পূর্বে দীঘিনালা সেনা ক্যাম্পে আসতে হবে।নিরাপত্তার জন্য সেনাবাহিনীর টহল গাড়ির পাহারায় পর্যটকদের সাজেক পৌঁছানো হয়।যা “এসকোর্ট” নামে পরিচিত । এসকোর্ট সকাল ১০টা -১১টার মধ্যে শুরু হয়।একবার এসকোর্ট মিস করলে বিকেল অব্দি আর সাজেক যাওয়ার উপায় নেই।বিকেল তিনটায় পুনরায় এসকোর্ট।
সাজেক আমার কাছে মেঘের মেলা আর সাজেকে যাবার উঁচুনিচু আঁকাবাঁকা রাস্তা হলো জীবন্ত রোলার কোস্টার। চান্দের গাড়িতে চড়ে সাজেক যাবার অনুভূতি ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না।পথে যেতে যেতে পাহাড়ি সবুজ বন , উপজাতিদের জীবন চিত্র, ভাসমান মেঘ দেখতে দেখতে কখন যে সাজেক পৌঁছে যাবেন বুঝতেই পারবেন না। পাহাড় তার বিশালত্ব দিয়ে বরন করবে অতিথিকে। সাজেকে বহু কটেজ পাবেন থাকার জন্য। ভাল হয় আসার আগে থেকেই যদি বুকিং দিয়ে রাখেন। বুকিং না দিয়ে থাকলে নিজের পছন্দ ও সাধ্যের মধ্যে দরদাম করে উঠে পড়বেন কটেজে।তবে খেয়াল রাখবেন রুমের জানালা যাতে পাহাড় মুখি হয়।সাজেকের রূপ আপনাকে বিমোহিত করবেই।সাজেকের সূর্যাস্ত,সূর্যদোয়,পাহাড় আর পাহাড়ি জীবনচিত্রে আপনি হারিয়ে যাবেন কল্পনার রাজ্যে। যেখানে নেই কোন যান্ত্রিকতা,নেই যানজট বা কোলাহল । শুধু আপনি ,প্রকৃতি আর মৌনতা ।পরের দিন সকাল ১১টায় এসকোর্ট আছে যা আপনাকে আবার নিরাপদে দিঘিনালা পৌঁছে দিবে।দিঘিনালা হয়ে খাগড়াছড়ি, তারপর নিজ গন্তব্য।
পিছনে ফেলে আসবেন মেঘের রাজ্যে আপনার পদচিহ্ন,আর আজীবন সংগী হবে মেঘবালিকার সাথে কাটানো কিছু সুখ স্মৃতি।

আপনার মন্তব্য