বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে অপমান!!! এবং ইসলাম ধর্ম নিয়ে বিকৃত কটুক্তি করল এক উইলিয়াম গোমেজ! সেলিব্রিটি হবার বাসনা?

121
SHARE

আজকাল নতুন এক ট্রেন্ড শুরু হয়েছে। কেউ জনপ্রিয়, বিখ্যাত বা কুখ্যাত হতে চাইলে খুব সহজেই হয়ে যেতে পারে – ফেসবুকে বা টুইটারে যেকোন ধর্ম নিয়ে কটুক্তি করা। খুব সহজ। কদিন আগে ভারতীয় গায়ক সনু নিগাম আযান নিয়ে একটি মন্তব্য করে তার টুইটার একাউন্টে ঝড় তুলেছিলেন। বেশ সমালোচনার মুখোমুখি হয়েছিলেন, এখনও হচ্ছেন। অনেকেই বলেছেন হারানো জনপ্রিয়তা ফিরে পেতেই সনু এই কাজ করেছে নিজেকে একটু বিতর্কিত করে ফেলার জন্য। এরা তো না হয় গেল সেলিব্রিটি – পুরোনো সেলিব্রিটি। কিন্তু এসব পন্থা অবলম্বন করে এখন নাম না জানা অনেকেই বিতর্কের সৃষ্টি করে রাতারাতি বিখ্যাত বনে যাচ্ছেন। ফেসবুকে লাইক আর ফ্যান কামানোই তাদের উদ্দেশ্য। আর এর জন্য তারা চাইলে নিজের মাকেও বিক্রি করতে পারে।

এমনই এক মানুষ আমাদের নজরে এসেছে যার নাম জীবনে কোনদিন শোনা যায়নি। সনু নিগামের আযান নিয়ে কটুক্তিকে মন্তব্য করে উইলিয়াম গোমেজ নামের এই বাংলাদেশী নিজের ফেসবুক পেজে ইচ্ছামত ইসলাম ধর্মকে অপমান করছে একের পর এক স্ট্যাটাস মেসেজ দিয়ে। এগুলো সে সবকিছু করছে তার পাবলিক পেজে। মাত্র ১১,০০০ মানুষের এই পেজে গত কয়েকদিনে সে বেশ লাইক, ফ্যান কুড়িয়েছে, খেয়েছে গালিও। মসজিদের মুয়াজ্জিন আর কুকুরের ছবি পাশাপাশি রেখে এই ব্যাক্তি আযানকে কুকুরের ডাকের সাথে তুলনা করছে রীতিমত! তার এসব স্ট্যাটাস মেসেজের পাঠিক তেমন একটা না থাকলেও ধর্মকে কটুক্তি করে সরল মানুষদের উস্কে দেয়ার জোর চেষ্টা চালাচ্ছে। লাইক আর ফ্যান বাড়ানোর তার এই কষ্ট আসলেই চোখে পড়ার মত।

শুধু ধর্ম না, এই ব্যাক্তি বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীক উদ্দেশ্য করে নানারকমের কুরুচিপূর্ন মন্তব্য আর প্রধানমন্ত্রীর ছবিকে বিকৃতভাবে উপস্থাপন করছে নিয়মিত। এমনকি সে সরকার এবং গনমানুষের দিকে চ্যালেঞ্জও ছুড়ে দিচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে এই গোমেজ সরাসরি খুনী বলে আখ্যায়িত করছে আর নব্য জামাতী এজেন্ট বলে দাবী করছে।

তার ফেসবুকের সেই পেজ ঘাটাঘাটি করে বুঝা গেল উড়ে এসে জুড়ে বসা এই ব্যাক্তি শুধু মাত্র ফেসবুকে জনপ্রিয় হবার জন্য সহজ সরল মানুষদের উস্কে দেয়ার চেষ্টা করছে কোন কারন ছাড়াই। মত প্রকাশের অধিকার সবারই আছে কিন্তু কোন ধর্মের মানুষকে এভাবে আঘাত করে কথার বলার অধিকার কারো নেই। এই গোমেজ নিজেকে সাংবাদিক  দাবী করেন। কিন্তু সাংবাদিকতার নুন্যতম চিহ্ন তার কথাবার্তায় বা ফেসবুক কমেন্টে খুজে পাওয়া যায় না।

এই ব্যাপারে আমরা সরকারের সদয় দৃষ্টি আকর্ষন করার অনুরোধ করছি। এধরনের মানুষগুলো দেশের ভাবমূর্তিকে নষ্ট করে সবসময়। সেই সাথে সরকারেরও। একটা দেশের প্রধানমন্ত্রীকে কিভাবে সম্মান দেখাতে হয় সেটিও তার জানা নেই। তার এধরনের উস্কানিমূলক কথাবার্তা ইতিমধ্যে স্যোশাল মিডিয়াতে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় তুলেছে। কিন্তু কেউ কিছু বলছেনা। তাই আমরাই দাবী জানাচ্ছি, ধর্ম নিয়ে বিকৃত কটুক্তি করা এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে বিকৃত করে অপমান করার জোর প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং ফেসবুক থেকে এধরনের মানসিক বিকারগ্রস্ত যত উইলিয়াম গোমেজ আছে, তাদের সবাইকে শাস্তির আওতায় এনে বাংলাদেশের অনলাইন নেটওয়ার্ক কে সুস্থ এবং নিরাপদ রাখার আহবান জানাচ্ছি।

বোনাস ভিডিও – সনু নিগামকে বাংলাদেশীজম প্রজেক্টের জবাব

আপনার মন্তব্য