বিদেশে উচ্চ শিক্ষায় স্কলারশীপ খুজে দেয়ার জন্য দেশী অলাভজনক প্রতিষ্ঠানের চেষ্টা

বিদেশে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হতে চান এমন অনেকে আছেন। কিন্তু সে জন্য কি করা লাগবে, কোথায় কথা বলবেন বা বিনা টাকায় স্কলারশিপ নিয়ে কিভাবে পড়ালেখা করবেন তা নিয়ে সকলেরই মনে দ্বিধা আছে। দেশ এবং বিশ্বের উন্নয়নে উন্নত রাষ্ট্রের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলাতে শিক্ষার্থীদের পাঠাতে দিক নির্দেশনা দেওয়ার একটি পদক্ষেপ খুব দরকারী ছিল। তাই এই সমস্যার সমাধান করতে এগিয়ে এলো ইন্টারন্যাশনাল স্কলারশিপ্স নন-প্রফিট অর্গানাইজেশন।

শুরুটা হয়েছিল ২০১৪ সালে। বিনা খরচে স্কলারশিপ পেয়ে বিদেশে পড়াশুনা করার খোঁজ করতে গিয়ে খুঁজে ফেলেন অর্গানাইজেশন টিকে শাহরিয়ার আজিজ আকাশ। নিজের জন্য তথ্য খুঁজে পেতে কষ্ট হওয়ায় ইন্টারন্যাশনাল স্কলারশিপ্স নন-প্রফিট অর্গানাইজেশন এর একটি ফেসবুক পেজ তখনই খুলা হয় স্কলারশিপ্স নামে। পেজটি খোলার উদ্দেশ্য ছিল সাধারণ ভাবে স্কলারশিপ এর আপডেট প্রকাশ করা।

কিন্তু সময় যত গড়িয়েছে, ফেসবুক পেজটিতেও যুক্ত হয়েছে আরও অনেক নতুন কিছু। ২০১৪ সালেই পেজ টি ইন্টারন্যাশনাল স্কলারশিপ্স নন-প্রফিট অর্গানাইজেশন নামে পরিচিত হয় এবং একটি ফেসবুক গ্রুপও খোলা হয় ISNPO (Scholarships) নামে। এখন অর্গানাইজেশন টির মেম্বার ৩৬০০০ এরও বেশি। অর্গানাইজেশনটি শুরু হয় “Let’s help; Let’s make a GLOBAL FAMILY” – এই ট্যাগলাইন্ নিয়ে।

এখন এই অর্গানাইজেশনটি শুধুই স্কলারশিপ আপডেট প্রকাশ করে না বরং মানুষকে স্কলারশিপ পাওয়ার জন্য যোগ্যও করে তোলার প্রচেষ্টা চালায়। বিদেশী বিশ্ববিদ্যালয় গুলা যে শুধু বই পড়ুয়া ছাত্র এবং জিপিএ ৫ পাওয়া ছাত্র দের নেয় না; স্কলারশিপ পেতে হলে অনেক এক্সট্রা কারিকুলাম একটিভিটি  ও থাকতে হয়। যেমনঃ সায়েন্স ফেয়ার, ডিবেট এবং এক্সটেম্পর স্পিচ ইত্যাদি সার্টিফিকেট এই ক্ষেত্রে অনেক মূল্যবান। এছাড়াও রিকমেন্ডেশন লেটার ও ফী ওয়েভার এপ্লিকেশন থাকাও জরুরি। আর যে জিনিসটি না হলেই নয় তা হল IELTS বা TOEFL জাতীয় ইংলিশ টেস্ট স্কোর। এ সকল তথ্য দিয়ে শিক্ষার্থীদের ফর্ম প্রয়োজনে নিজ হাতে পুরন করে বিদেশে উচ্চ শিক্ষায় শুধুই দেশের নয় বরং বিদেশেরও মানুষের সাহায্য করছে এই অর্গানাইজেশনটি।

বর্তমানে Tuition Free ইউনিভার্সিটি গুলাকে প্রাধান্য দিয়ে USA এর একটি বিশেষ ইউনিভার্সিটি (University of the People) এও বাংলাদেশ সহ আরও বিভিন্ন দেশের ছাত্র দের শিক্ষার ব্যবস্থা করে দিয়েছে অর্গানাইজেশনটি। এবং শিক্ষার্থীদেরকে উৎসাহ প্রদান করার জন্য এ সকল ইউনিভার্সিটি এর সফল ছাত্র ছাত্রী দের ইন্টার্ভিউও প্রকাশ করছে অর্গানাইজেশনটি।

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কি? একটি শিক্ষিত, দারিদ্রমুক্ত পৃথিবী গড়া মুল উদ্দেশ্য। এবং এটা শুধুই সম্ভব শিক্ষাকে মৌলিক অধিকার বানিয়ে জনসাধারণের জন্য বিনামূল্যে দেয়া হলে। তাই অর্গানাইজেশনটি এখন কাজ করছে একটি মোবাইল App নিয়ে যেটা শিক্ষার্থীদের কে সাহায্য করবে ইউনিভার্সিটি এর ফর্ম ফিলাপ করাতে, তাদের দেয়া ইনফরমেশন এর ভিত্তিতে তাদের জন্য বেষ্ট ইউনিভার্সিটি এর লিস্ট দিতে এবং যেকোনো ব্যাপারে লাইভ সাহায্য পেতে, প্রশ্নের উত্তর পেতে। এছাড়াও অর্গানাইজেশনটির  পরিকল্পনা একটি অনলাইন ভার্চুয়াল স্কুল বানানো যা বিনা বেতনে অধ্যয়নের সুযোগ করে দিবে বাংলাদেশ সহ সারা বিশ্বের মানুষকে। এখানে PEER to PEER Learning System থাকবে যা আমাদের সাধারণ ক্লাস গুলোর চেয়ে ভাল ভাবে শিখতে সাহায্য করে। বোর্ড সদস্যদের মাঝে রাখার পরিকল্পনা আছে University of The People এর মতই বিশ্বের নাম করা শিক্ষকদের। বলে রাখা ভালো যে University of the People এর সকল প্রফেসর University of Oxford, MIT, Yale, NYU ইত্যাদি থেকে এসেছেন এবং বিনামূল্যে পড়াচ্ছেন। এ ধরনের স্কুল থাকলে বাংলাদেশ এবং বহির্বিশ্বের সকল শিক্ষার্থী শুরু থেকেই কোয়ালিটি সম্পন্ন শিক্ষার দেখা পাবে। এ ক্ষেত্রে অর্গানাইজেশনটির বিশেষ সহায়তা প্রয়োজন জনসাধারণ এবং সরকার এর থেকেও।

এই পদক্ষেপ গুলা নেয়ার পেছনে কারণ কি? কারণ, শাহরিয়ার আজিজ আকাশ HSC পড়াশুনার মাঝেই Highest Merit Based Scholarship পান বিশ্বের ২০০তম স্থান অধিকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে (Florida Institute of Technology)

কিন্তু ব্যাংক স্টেটমেন্ট না থাকায় এরকম ৫ টি ইউনিভার্সিটি এর স্কলারশিপ অফার গ্রহণ করতে পারেন না তিনি। তাই তিনি নিজের মতো কোটি কোটি শিক্ষার্থী এর জন্য শিক্ষাকে মৌলিক অধিকার আকারে উপহার দেওয়ার জন্য এই পদক্ষেপ গুলা নেন।

No automatic alt text available.অর্গানাইজেশনটির একটি টিম ও আছে। এই টিমই বলতে গেলে অর্গানাইজেশনটির প্রাণ। অদ্ভুত এই টিমে রয়েছেন স্বপ্নবাজ একদল তরুণ, যাঁরা বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এসে মিলেছেন এক ছায়াতলে। এই গুটি কয়েক মুখেরা মিলে এই প্রায় অসম্ভব স্বপ্নকে সত্যি করার প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন। এদের কার্যক্রম একটু অন্য রকম। যতই উদ্ভট হোক, টিমের যে কারও মাথায় কোনো আইডিয়া এলে এখানে সেটি চেষ্টা করে দেখা হয়। টিমের সবার কাজ করার প্রতি আগ্রহ দেখার মতো, আর এ জন্যই সম্ভবত একটি অনলাইন অর্গানাইজেশন এতটা পরিচিতি পেয়েছে। অর্গানাইজেশনটি একটা প্ল্যাটফর্মের মতো, এখানে যে কেউ চাইলে তাঁদের মেধা ও মননশীলতার দ্বারা সহায়তা করতে পারেন, অর্গানাইজেশনটিকে কীভাবে আরও উন্নত করা যায়, সে নিয়ে মতামত দিতে পারেন। এই টিমটি স্বাগত জানায় আরও মেধাবী, সৃজনশীল মস্তিষ্ককে, আর সে জন্য যা করতে হবে তা হলো অর্গানাইজেশনটির ফেসবুক পেজে (https://www.facebook.com/isnporg) জানাতে হবে আপনার সম্পর্কে।

ইন্টারন্যাশনাল স্কলারশিপ্স নন-প্রফিট অর্গানাইজেশন আমাদের শিক্ষাব্যবস্থায় নিঃসন্দেহে একটা বিপ্লব শুরু করেছে। এ বিপ্লব রাজ্য জয়ের নয়, এ বিপ্লব জীর্ণ শিক্ষাব্যবস্থা পাল্টানোর। আপনিও চাইলে হতে পারেন অর্গানাইজেশনটির জয়যাত্রার একটি অংশ, দরকার শুধু একটুখানি উদ্দীপনা আর নতুন কিছু করার উৎসাহ।

আপনার মন্তব্য
(Visited 1 times, 1 visits today)

About The Author

Bangladeshism Desk Bangladeshism Project is a Sister Concern of NahidRains Pictures. This website is not any Newspaper or Magazine rather its a Public Digest to share experience and views and to promote Patriotism in the heart of the people.

You might be interested in