in

প্রতিপক্ষের মুখ বন্ধ করে দেয়া প্রধানমন্ত্রীর ৯টি উক্তি

রাজনীতিতে নিজ দলীয় আদর্শ চর্চার পাশাপাশি অন্য আরেকটি প্রধান উদ্দেশ্য থাকে যে, প্রতিপক্ষ সম্পর্কে তির্যক মন্তব্য করে ঘায়েল করা। এসব কথা অনেক সময় ব্যক্তিগত পর্যায়ে চলে যায় আবার অনেক সময় ঠাট্টা-মশকরা কিংবা বিদ্রুপ প্রকৃতিরও হয়ে থাকে। পৃথিবীর বহু গণতান্ত্রিক দেশেই এই চর্চা বহু বছর ধরেই চলে আসছে। বাংলাদেশও এর ব্যতিক্রম নয়। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে আমরা অন্যদের চেয়েও  অগ্রসরমান। এই যেমন কিছুদিন পূর্বেই সুপার পাওয়ার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার প্রতিপক্ষ উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং পরস্পরকে বিদ্রুপ করে বক্তব্য/বিবৃতি দেয়।  ট্রাম্প তার বিভিন্ন বক্তব্য এবং ব্যক্তিগত টুইটে কিম সম্পর্কে বলেন, “কিম একজন ক্ষুদ্র রকেট ম্যান, তাঁর সঙ্গে আলোচনা করাই হচ্ছে সময় নষ্ট করা”। অন্যদিকে কোরীয় নেতা কিমও ছাড় না দিয়ে বলেছেন, ‘ট্রাম্প হচ্ছেন একজন বুড়ো এবং মানসিক বিকারগ্রস্ত’। পরস্পর বাক্য বিনিময়ের পর আবার বিশ্ববাসী দেখল এই দুই নেতা বেশ খোশ মেজাজে বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশে সিঙ্গাপুরের শীর্ষ বৈঠকে মিলিত হলেন। ঠিক তেমনি রাশিয়ার সাথে ব্রিটেনের দ্বৈরথ ও আমরা দেখতে পাই। আবার এসবের বাইরে দেশের অভ্যন্তরে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষগুলোও মেতে উঠে পরস্পর সমালোচনা ও বিদ্রুপে, অনেক সময় যা ব্যক্তিগত পর্যায়েও চলে যায়। আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও মহান জাতীয় সংসদে প্রতিপক্ষ রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দদের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন সময় হাসি ঠাট্টা ও বিদ্রুপের ছলে বক্তব্য দিয়েছেন। যা পরবর্তীতে ভাইরাল হয়েছে এবং রাজনৈতিক অঙ্গনে বেশ সাড়া জাগিয়েছে। সেসব বক্তব্যগুলোতে দেখতে পাই, তিনি মূলত বিভিন্ন সময়ে তাঁর ব্যক্তিগত, পরিবার ও পার্টি সম্পর্কে প্রতিপক্ষের করা মন্তব্যের জবাব দিয়েছেন। চলুন নিচের ভিডিওতে দেখে নিই তেমন কিছু বিদ্রুপের চুম্বক অংশ…

 

[youtube https://www.youtube.com/watch?v=SRkNKbGfTaQ]

What do you think?

Written by MP Comrade

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Loading…

0

Comments

0 comments

লোকপূরাণ -বেহুলা লক্ষ্মিন্দরের কাহিনি অজানা সব তথ্য

আমি কারাগার থেকে বলছি।