in

আমেরিকার বাফেলো শহর বাংলাদেশিদের দখলে

আমেরিকার অন্যতম এক শহর বাফেলো। আমেরিকার সবচেয়ে জনবহুল শহর নিউইয়র্ক বসবাস করা অনেক বেশি ব্যয়বহুল। তাই ১৯৯০ এর দশকে অনেক বাঙ্গালী নিউইয়র্ক শহর থেকে বাফেলো শহরে আসতে শুরু করে। মাত্র এক দশকে প্রবাসী বাঙালীরা কিভাবে এই শহরকে বদলে দিয়েছে তা জানব আজকের আলোচনায়।

আমেরিকার সবচেয়ে জনবহুল শহর নিউইয়র্কে প্রায় আড়াই লাখেরও বেশি বাংলাদেশি বসবাস করে। বিশ্বের অন্য প্রধান অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নিউইয়র্কে বসবাস করা অনেক বেশি ব্যয়বহুল। নিউইয়র্কে বসবাসকারি বাংলাদেশি ও অধিবাসীদের প্রতি ৩ জনের একজন দারিদ্র সীমার নিচে বাস করে। আর তাই ৯০ এর দশকে অনেক বাঙালী নিউইয়র্ক শহর থেকে মাত্র ৩৭৫ মাইল দূরে বাফেলো আসা শুরু করে। কম খরচে সেরা আবাসনের কারণে অনেকের কাছে বাফেলো জাদুর শহর হিসেবে পরিচিত। এ শহরটি আমেরিকা কানাডা সীমান্তের খুব কাছে অবস্থিত। বাফেলো শহরে প্রতি বছর অক্টোবর মাসে নিলাম হয়। দূর দূরান্ত থেকে প্রচুর বাংলাদেশি এই নিলামে অংশ নিয়ে পুরাতন বাড়ি ঘর, গীর্জা ও বড় বড় ওয়্যার হাউজ কিনে নেই। ৯০ এর দশকে নিউইয়র্কে কয়েক মাসের বাড়ি ভাড়ার টাকা দিয়ে পুরো একটি বাড়ি কিনে ফেলা যেত। তখন থেকে বাঙালীরা এখানে এক এক করে অনেক গুলো বাড়ি কিনে ফেলেছে। অনেক বাংলাদেশির এখানে একাধিক বাড়ি রয়েছে। এমন কি কারো করো সর্বোচ্ছ ৫০ টির বেশি বাড়ি রয়েছে। সস্তায় বাড়ির আশায় অনেক বাংলাদেশি অধিবাসি নিউইয়র্ক ছেড়ে বাফেলোতে এসেছেন। আর এই ভাবে সবার অজান্তে ধীরে ধীরে এই জায়গার পরিবর্তন করে ফেলেছেন বাংলাদেশিরা।
কিছুদিন আগ পর্যন্ত বাফেলো ছিল অত্যন্ত অপরাধ মূলক একটি শহর। অধিবাসিরা বাফেলোতে আসার শুরুর পর থেকে শহরে অপরাধ প্রবণতা ৭০ শতাংশ থেকে কমে ৩০ শতাংশতে এসে নেমেছে। গত কয়েক বছরে এখানে বিভিন্ন দেশের অধিবাসিদের আগমন যেন স্রোতে পরিণত হয়েছে। এদের মধ্যে বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান ও বারমার অধিবাসি বেশি হলেও আফ্রিকা সহ মধ্য প্রাচ্যের অধিবাসিরাও রয়েছেন। এ দেশে নতুন আবাসন সৃষ্টির সাথে সাথে নতুন কর্মস্থানও তৈরি হয়েছে। নতুন নতুন হালাল মার্কেট, রেস্টুরেন্ট, স্কুল এখনো গড়ে উঠছে। বেশির ভাগেরই মালিক এখানে নতুন আসা বাংলাদেশি। বর্তমানে প্রায় দেড় হাজারেরও বেশি পরিবার বাফেলো শহরে বাস করছে। সেখানে বাফেলো বাংলা নামে একটি মাসিক পত্রিকা প্রকাশিত হচ্ছে। এ পত্রিকাটি বাংলাদেশি গ্রাহকদের সম্পূর্ণ ফ্রী তে দেওয়া হয়।
এক সময় বাফেলো শহরে অনেক ধার্মিক খ্রীষ্টান বসবাস করতো। ফলে শহরে অনেক গুলো গীর্জা ছিল। কিন্তু বর্তমানে এ শহরে খ্রীষ্টান ধর্ম চর্চাকারির সংখ্যা প্রায় শূণ্যেকোঠায় চলে এসছে। তাই বাধ্য হয়ে গীর্জা কর্তিপক্ষ গীর্জা গুলো মুসলীমদের কাছে বিক্রী করে দিচ্ছেন। মুসলীমরা গীর্জা গুলো কিনে মসজিদ মাদ্রাসা ও ইসলামি সেন্টার বানিয়ে ফেলছে। বর্তমানে শহরটিতে প্রায় ১৫-১৬ টি মসজিদ রয়েছে। বড় বড় স্থাপনা ও ভবন নাম মাত্র দামে কিনে গড়ে তুলা হয়েছে এসব মসজিদ ও মাদ্রাসা। নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের সবচেয়ে বড় মাদ্রাসা এখন বাফেলোতে অবস্তিত। বার্তমান বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাবান দেশ আমেরিকা। কীভাবে আমেরিকা পরাশক্তি হয়ে উঠেছে তা নিয়ে আমাদের এই আর্টিকেলটি দেখুন। http://footprint.press/archives/27293

What do you think?

Written by Md Meheraj

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Loading…

0

Comments

0 comments

গ্রেট ডিপ্রেশন হিস্ট্রি

কুকুর বিড়ালেরও পরিবার আছে।