in

কাঠের তৈরি ১৮ তলা ভবন!

আমাদের প্রকৃতিতে এমন কিছু জিনিস রয়েছে যেগুলো দেখলে আমরা অবাক হয়ে যায়। অনেক সুন্দর পাহাড়, নদী, ঝর্ণা আরো না জানি কত জিনিস আছে না জানি সেগুলো কত সুন্দর। সেগুলো বেশির ভাগই হচ্চে প্রকৃতির তৈরি। কিন্তু আজকে আমরা যে অদ্ভুদ নির্মাণ নিয়ে কথা বলব সেইটি প্রকৃতির নয়, বরং মানুষের তৈরি। এখনকার সময়ে ইঞ্জিনিয়াররা এতটা উন্নত হয়ে গিয়েছে যে অদ্ভদ জিনিস প্রতিনিয়ত নির্মাণ করেই চলেছে। যেগুলো সম্পর্কে আমরা ধারণাও করতে পারিনা। আজকে আমরা জানবো পৃথিবীর অদ্ভুদ কিছু নির্মাণ সম্পর্কে। যেগুলো অনেক সুন্দর। অনেকটা আশ্চর্যজনকও বটে।

ক্রিক টাওয়ার, দুবাইঃ এই বিল্ডিংটি দেখে আপনি অবাক হতে পারেন এবং ভাববেন এটা কি সত্যি পৃতিবীতে রয়েছে। সত্যিকার অর্থে এই বিল্ডিংটি রয়েছে এবং সেইটি দুবাই অবস্থিত। ক্রিক টাওয়ারের সবচেয়ে বড় বিশেষত্ব হলো, এটি উপর থেকে নিচ পর্যন্ত পুরোটা বাকানো। এটি প্রথমবার দেখলে আপনি অবাক হয়ে যাবেন এবং বিশ্বাস করতে কষ্ট হয়ে যেতে পারে। কিন্তু এটি সত্যি এবং অদ্ভুদ ভাবে এটি বানানো হয়েছে দুবাই। এই বিল্ডিংটি তৈরি করতে ২৭২ মিলিয়ন ডলার খরচ করতে হয়েছে। ৩০০ মিটার উঁচু এই বিল্ডিংটি আর্কিটেক্টের এক নতুন এবং আশ্চর্য নমুনা। যেটি পৃথিবীর অদ্ভুদ জিনিসের মধ্যে পরে।

ক্রাইস্ট দ্যা রিডিমার মূর্তি, রিও ডি জেনেইরো, ব্রাজিলঃ এটি যিশুর মূর্তি। এই মূর্তিটি ব্রাজিলে অবস্থিত। যিশুর এই মূর্তিটি প্রায় ৩৮ মিটার উঁচু এবং রিও ডি জেনেইরোর সামনে করকোভাদো পাহাড়ের মাথায় স্থাপিত হয়েছে। এর নকশা অংকন করেছিলেন ব্রাজিলীয়ান এক চিত্র শিল্পী। এই মূর্তিটি হাইটর দ্যা সিলভা কোস্টা নামের এক ব্রাজিলীয়ের করা নকশা অনযায়ী ফরাসি শিল্পী পর ল্যান্ডোওস্কি এর নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করেন। এটি তৈরিতে প্রায় ২৫০ হাজার মিলিয়ন ডলার ব্যয় করা হয়েছিল। এর নির্মাণ কাজ শেষ করতে প্রায় ৫ বছর সময় লেগেছিল। এবং এর শুভ উদ্ভোধন করা হয়েছিল ১৯৩১ সালের ১২ অক্টোবর।

অনেকে কাঠের বাড়ি পছন্দ করেন। কারণ কম খরছে অনেক সুন্দর ও কারুকার্য দিয়ে কাঠের বাড়ি বানানো সম্ভব। কিন্তু অনেকে হইতো মনে করে কাঠের বাড়ি হওয়াতে এটি টেকসই নাও হতে পারে। আসলে সেইটি ভুল ধারণা। ভাল কাঠ দিয়ে বাড়ি নির্মাণ করলে যুগ যুগ ধরে এত বসবাস করা অসম্ভব কিছু না। কাঠের তৈরি বাড়ি গুলো সাধারণত দুই তলা বা তিন তলা হয়ে থাকে। কিন্তু আপনি যদি শুনেন কাঠের তৈরি ১৮ তলা বাড়ি আছে তাহলে কী খুব বেশি অবাক হবেন? অবাক হলেও সত্য এবার ১৮ তলা বাড়ির দেখা মিলেছে নরওয়েতে। যেটা সম্পূর্ণ কাঠ দিয়ে তৈরি। পরিবেশবান্ধব নির্মাণ পদ্ধতির এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে উঠেছে আধুনিক বহুতল এই কাঠের বাড়ি। মিয়োসা হ্রদের তীরে ১৮ তলা কাঠের এ বাড়িটির উচ্চতা ৮৫ মিটার। মূলত এই বাড়িটি কনক্রিটের বাড়িগুলোর মত টেকসই। এতে বহু বছরের মৌলিক গবেষণার মাধ্যমে ভবনটিকে তীব্র বাতাস ও চরম আবহাওয়ার ধাক্কা থেকে সুরক্ষিত রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ কাঠ দিয়ে নির্মাণে পারদর্শী একটি কোম্পানি বাড়িটি ডিজাইন করেছেন, তারাই জানিয়েছেন এমন তথ্য। এই বাড়ি প্রসঙ্গে প্রকল্পের সমন্বয়ক একজন বলেন, এ কাজটা তাদের জন্য নতুন একটি কাজ ছিল। অনেক পরিশ্রম এবং অনেক নির্ঘুম রাত কাটিয়ে তারা এই কাঠের ভবনটি নির্মাণ করেন। এই কাঠের ভবনের ভর সামলাতে ভবনের স্তম্ভগুলোকে মাটির অনেক গভীরে পর্যন্ত বসানো হয়েছে বলে জানান তারা। তারা অনেক চেষ্টা করেছেন এবং অবশেষে তাদের চেষ্টা সফলতায় রুপ নিয়েছে।

What do you think?

Written by Md Meheraj

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Loading…

0

Comments

0 comments

বিশ্বের রহস্যময় কিছু দরজা

ড্রোন (Now Part Of Everyday)