সাবধান ISIS !!!! খারাপ সময় আসছে তাদের জন্য!

298
SHARE

যারা অনলাইনে বিচরণ করেন এতক্ষণে হয়তো দেখে ফেলেছেন আইসিস নামক জঙ্গি গোষ্ঠীর হালুম হালুম করা ভিডিও যেখানে তারা বলে গেছে বাংলাদেশের হেন করবে তেন করবে। আইসিস ঠিক কি মেসেজ দিতে চেয়েছে জানি না ভিডিওর মধ্যে ৩ জন বাংলাদেশী রেখে। আমাদের দেশের উচ্ছিষ্ট এসব হাঁদারামকে আইসিস সিরিয়াতে নিয়ে নিরীহ মানুষকে মারার ট্রেনিং দিয়ে আবার এই ভিডিও বানিয়ে আসলে একটা ভুয়া ত্রাস সৃষ্টি করার চেষ্টা করছে। মজার ব্যাপার হল আমরা বাংলাদেশীরা কিন্তু বেশ ভালভাবে জানি – খালি কলশী বাজে বেশী।

আইএস একটি জঙ্গি সংগঠন। কিন্তু তার চাইতে বড় কথা, তারা একটা ধোঁকাবাজ জঙ্গি সংগঠন। অন্যান্য জঙ্গি সংগঠনের মাঝে মধ্যে একটু লজ্জা বা মোড়াল থাকে কিন্তু আইসিস এর সেটাও নেই। এরা একেবারেই ভুয়া এবং ধোঁকাবাজ সংগঠন। কেন? খুব সহজ!

আইসিস এর রিক্রুটমেন্টে তারা সবসময় ধর্ম সম্পর্কে কম জানে এমন মানুষদের নেয়। কারণ এবিষয়ে যাদের জ্ঞান কম, তাদেরকে বোকা বানানো খুব সহজ! পবিত্র কোরআন শরীফের নানা আয়াতের ভুলভাল ব্যাখ্যা দিয়ে তারা নিজেদের বিশাল পণ্ডিত বানিয়ে ফেলে। নতুন রিলিজ হওয়া হুমকি ভিডিওতে ৩ বাঙ্গালী নিজেদের বিশাল পণ্ডিত মনে করে। গুলশানের পাশবিক হত্যাকাণ্ডকে তারা সাধুবাদ জানায় এই ভিডিওতে। আল্লাহর নাম নিয়ে নিরস্ত্র নিরীহ মানুষ জবাই করে তারা নিজেদের “বিশাল” বড় যোদ্ধা ভাবে। কিন্তু আসলে এরা এক একটা “চিকেন” ছাড়া কিছু না। একটা মুরগীরও ওদের চাইতে বেশি সাহস আছে। আল্লাহর নাম নিয়ে নিরস্ত্র নিরীহ মানুষকে মেরে তারা নিজেদের খুব জাহির করে। মানুষকে পেছন থেকে আঘাত করে কাপুরুষের মত আর নিজেদের আল্লাহর সৈন্য বলে। এদের তো কচু গাছে ঝুলে ফাঁসি খাওয়া উচিত।

কিন্তু ওই যে, ধোঁকাবাজদের লজ্জা থাকে না। এদের মাথায় ঘিলু কম। বুদ্ধি কম। এর চাইতে ভাল কিছু এরা করতে পারেনি। লুক এট দ্যাম। জীবনে বিফলতা ছাড়া তেমন কিছু নেই তাদের। আর তাদের হতাশা আরও বড় রূপ নেয় কারণ এসব টেররিস্টদের ব্যাকগ্রাউন্ড চেক করে দেখলেই বোঝা যায় এদের সমস্ত সুবিধা থাকলেও শেষ পর্যন্ত জীবনে এরা কিছুই করতে পারে না। আর ঠিক একারণেই তারা এসব পথে যায় আর এদের মাথায় যেহেতু বুদ্ধি কম আর মানসিকভাবে প্রতিবন্ধী, তাই এদের উল্টোপাল্টা বুঝানো খুব সহজ। এদের ধর্ম সম্পর্কে জ্ঞান কম তাই ধর্মের নাম দিয়ে যেকোন মন্ত্র পড়ানো এদের যায়। এটাকেই তারা বলে “ব্রেইন ওয়াশ”। আর কিছু হলেই নানা দেশে মুসলমানদের নিপীড়নের কিছু ভিডিও আর গল্প বলে নিজেদের কুকুকর্মকে হালাল করার চেষ্টা করে। এরা নিজেদের মুসলমান নাম দিয়ে নিজেরাই মুসলমানদের হত্যা করে। তাও আবার নিরীহ। চোরের মত আক্রমণ করাই এদের কাজ। এদের তো হাতে চুড়ি আর শাড়ী পরে বসে থাকা উচিত। এদের এটাই মানায়।

আইসিস এর সবচেয়ে বড় ভুল হবে বাংলাদেশেকে টার্গেট করা। এটা হবে তাদের সবচেয়ে বড় এবং লজ্জাজনক ভুল। কারণ বাংলাদেশের মানুষ “পিটিয়ে সোজা করে দিতে পারে”। এখানে মানুষের ভয় কম। মাথা গরম হলে যেকোন মুহুর্তে যে কাউকে পিটিয়ে সোজা করে দিতে পারে। ধর্মের নাম দিয়ে এখানে আগে কেউ ব্যবসা করতে পারে নি। আইসিস ও পারবে না। আর আইসিস এর এত হম্বি তম্বির কারণ হল তারা আসলে ফাকা কলসি। নিরস্ত্র নিরীহ মানুষকে মেরে, ২/১ টা বোমা ফুটিয়ে, স্কুল কলেজের ছাত্রছাত্রীদের ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে তারা শুধু নিজেদের নপুংসকতার পরিচয় দিয়ে যাচ্ছে। তবে সাবধান আইসিস, এটা বাংলাদেশ। এখানে পিটিয়ে সোজা করা হয়। আইসিস এর আ বা এস কিছুই থাকবে না যদি বাংলাদেশকে টার্গেট করা হয়। সাবধান! আমরা এর আগে পাকিস্তানীদের লাথি মেরে বের করেছি। আইসিস কেও ফু দিয়ে বের করব। লাথি মারার প্রয়োজন হবে না।

সাবধান আইএস। খারাপ সময় আসছে। আইএস – দ্যা চিকেন স্টেট। এবার উল্টো তাদের ব্রেইন ওয়াশ করা হবে। একটা পেজও খুলা হয়েছে তাদের ধোলাই করার জন্য। লিঙ্ক – ISThe Chicken State. মআর এ নিয়ে আমাদের কিছু নতুন ভিডিও আসছে এই সপ্তাহে। যদি দেখতে চান আগে ভাগ্যে, তাহলে আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি এই লিঙ্কে গিয়ে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন। ঠিকানা – YouTube.com/bangladeshism.

আপনার মন্তব্য

5 COMMENTS

  1. বরং আপনার কথাগুলোই আবেগ আর চেতনামণ্ডিত মনে হচ্ছে। এ ধরনের ফাঁকা কথা না বলে বরং তাদেরকে মোকাবেলায় কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া জরুরী।

  2. ‘এদের তো হাতে চুড়ি আর শাড়ী পরে বসে থাকা উচিত। এদের এটাই মানায়’ নারীদের অসম্মান আর অপমান করলেন এটা লিখে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here