মাত্র ৪ বছরের বায়েজীদ হোসেইন

15213
SHARE

ছবির বাচ্চাটিকে দেখতে পাচ্ছেন না? বাংলাদেশী এই বাচ্চাটির নাম বায়েজীদ হোসেইন যার বয়স মাত্র ৪ বছর কিন্তু চেহারায়, শরীরে বার্ধক্যের ছাপ – দেখলে মনে হবে যার বয়স ৭০ এর উপরে।

বায়েজীদ Progeria নামের এক দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত। আর এই খুব Rare রোগের কারনে তার স্বাভাবিক জীবন-যাপন ব্যহত। অন্যান্য ১০ টা শিশুর মত তার জীবন নয়। Progeria অত্যন্ত দুরারোগ্য একটি ব্যাধি যেটাকে জেনেটিক ডিজওর্ডার হিসেবে ধরা হয়। এ রোগে মানুষের বয়স বাড়তে থাকে খুব অল্প সময়ে, দ্রুত অর্থাৎ, দ্রুত বার্ধক্য আসতে থাকে। বার্ধক্যের সব ধরনের কমপ্লিকেশন এই শিশুটির আছে যেমন নানা ধরনের জটিল চর্ম রোগ, দুর্বল হাড় এবং দাঁত, হাড্ডির সংযোগস্থলে মারাত্মক ব্যাথা ইত্যাদি।

বায়েজীদের মা তৃপ্তি খাতুন বলেছেন, বায়েজীদের যখন জন্ম হয় তখন তার মা তাকে দেখেই খুব অবাক হয়েছিলেন। শরীরের শুধু মাংস আর হাড্ডি আর কিছু না। বায়েজীদের যখন জন্ম হয়, তার মায়ের বয়স তখন মাত্র ১৪। ডাক্তারদের কোন ধারনাই ছিলনা বায়েজীদের এই রোগ সম্পর্কে না ধারনা ছিল তার চিকিতসা সম্পর্কে। শারীরিক সমস্যাগুলো থাকলেও, বায়েজীদের বুদ্ধিমত্তা খুব প্রখর তার বয়সী অন্যান্য বাচ্চাদের তুলনায়। তার মা তাকে খুব জেদী আর অধৈর্য্য বলে। বায়েজীদ কথা বলতে খুব পছন্দ করে। সারাদিন সে কথা বলেই বেড়ায়।

এ পর্যন্ত প্রায় ৫,২০০ ডলার খরচ করা হয়েছে শুধু মাত্র বায়েজীদের জন্য একটি চিকিতসা খোজার জন্য কিন্তু বায়েজীদের অবস্থার তেমন কোন পরিবর্তন হয়নি। তার শারিরীক অবস্থা দিন দিন অবনতির দিকেই যাচ্ছে। ডাক্তাররা বলে দিয়েছেন, বায়েজীদ হয়তো তার ১৫ বছর বয়স পর্যন্ত বাচবে কিনা সন্দেহ আছে।

এই ছোট্ট বাবুটির জন্য অনেক অনেক ভালবাসা রইল আমাদের পক্ষ থেকে। তার কিছু ছবি আমরা পেয়েছি যেগুলো আমরা শেয়ার করলাম। যদিও বুকটা ফেটে যায় এসব ছবি দেখলে।

 

 

তথ্য সূত্র ঃ সিসিটিভি নিউজ
ফটো ক্রেডিটঃ কামরুজ্জামান

আপনার মন্তব্য