এই মুহুর্তের বাজারের সেরা সব স্মার্টফোন

47573
SHARE

বর্তমান  সময়ে হাতে একটা স্মার্টফোন না থাকলে নিজেকে স্মার্ট ভাবাটাই যেন কঠিন ! আধুনিক সময়ে স্মার্টনেসের এটা যেন পূর্ব শর্ত !  কথাটা একটু বেশি হয়ে গেলেও বর্তমান যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হলে একটা স্মার্টফোন থাকা অত্যন্ত জরুরী । প্রযুক্তির পুরোটাই যেন এই স্মার্টফোনের দখলে। বছর কয়েক আগেও মোবাইলফোন বলতে আমরা শুধুমাত্র কথা বলা যায় এরকম একটি যন্ত্র চিনতাম।  কিন্তু এখন যেন এই মোবাইলফোন ছোট-খাট একটা কম্পিউটারই হয়ে গেছে।  আশেপাশে এতো এতো স্মার্টফোন দেখে হয়তো আপনার মনে হচ্ছে আপনারও এখন একটা স্মার্টফোন দরকার । তাই আমাদের আজকের ফিচার হালের সেরা ৫ স্মার্টফোন নিয়ে ।

১। Samsung Galaxy S7 edge:- গত দুই বছর ধরে মোবাইল মার্কেট যাদের দখলে তাদের লেটেস্ট ফোন বর্তমানে সবার সেরা । এই ফোনের বৈশিষ্ট্য এবং কর্মক্ষমতা স্যামসাং ব্র্যান্ডের সকল ফোনের ঊর্ধ্বে,যার বাড়তি সুবিধা রয়েছে water-resistance এবং  external memory card। এতে রয়েছে  ৫.৫০ -ইঞ্চি টাচস্ক্রীন ডিসপ্লে, যার রেজুলেসন ১৪৪০ পিক্সেল by ২৫৬০ পিক্সেল। এই মোবাইলটি 1.6GHz octa-core প্রসেসর দ্বারা চালিত এবং এতে রয়েছে ৪ জি.বি ram। ক্যামেরা প্রসঙ্গে এতে রয়েছে 12 মেগাপিক্সেল প্রধান ক্যামেরা এবং 5 মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা।  অ্যান্ড্রয়েড 6.0 এর সকল সুবিধা সহ এতে রয়েছে ওয়াই ফাই, জিপিএস, ব্লুটুথ, এনএফসি, 3G, 4G এবং নানা রকম সেন্সর যা হল Fingerprint, accelerometer, gyro, proximity, compass, barometer, heart rate, SpO2.

 

২। Apple iPhone 6S plus:-  অ্যাপল কোম্পানি সেপ্টেম্বর ২০১৫ সালে এটি বাজারে ছাড়ে যা এখনো পর্যন্ত অ্যাপল কোম্পানির সেরা ফোন জায়গা দখল করে আছে। এতে রয়েছে  ৫.৫০-ইঞ্চি টাচস্ক্রীন ডিসপ্লে, যার রেজুলেসন ১০৮০ পিক্সেল by ১৯২০ পিক্সেল। অ্যাপল আইফোন 6S প্লাস A9 প্রসেসর দ্বারা চালিত হয় এবং এর সঙ্গে আছে 2GB RAM. ক্যামেরা প্রসঙ্গে এতে রয়েছে 12 মেগাপিক্সেল প্রধান ক্যামেরা এবং 5 মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। এর iOS version 9. অ্যাপল আইফোন 6S প্লাস একটি সিঙ্গেল সিম (জিএসএম) স্মার্টফোন এবং রয়েছে ওয়াই ফাই, জিপিএস, ব্লুটুথ, এনএফসি, 4G এবং নানা রকম সেন্সর যা হল Fingerprint, Proximity sensor, Ambient light sensor, Accelerometer, এবং Gyroscope.

৩। OnePlus 3:- সেরা বাজেট অ্যান্ড্রয়েড ফোন যার তুলনা আপনি তার দিগুণ বেশি দামি ফোনের সাথে করতে পারেন। এতে রয়েছে  ৫.৫০-ইঞ্চি টাচস্ক্রীন ডিসপ্লে, যার রেজুলেসন ১০৮০ পিক্সেল by ১৯২০ পিক্সেল। এই মোবাইলটি 1.6GHz quad-core Qualcomm Snapdragon 820 প্রসেসর দ্বারা চালিত এবং এতে রয়েছে ৮ জি.বি RAM. ক্যামেরা প্রসঙ্গে এতে রয়েছে ১৬ মেগাপিক্সেল প্রধান ক্যামেরা এবং ৮ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। অ্যান্ড্রয়েড ভার্সন 6.0.1 এর সাথে রয়েছে 3000 mAh এর ব্যাটারি। দুই সিম ফিচারের সাথে আরও আছে ওয়াই ফাই, জিপিএস, ব্লুটুথ, এনএফসি, 3G, 4G এবং নানা রকম সেন্সর যা হল Fingerprint, accelerometer, gyro, proximity, compass.

 

৪। Motorola Moto G4 plus:- মটোরোলা মটো G4 প্লাস স্মার্টফোন মে ২০১৬ সালে লঞ্চ করে। মার্কেটে ভাল বিক্রি না থাকলেও মানুষের নজরে এসেছে। কম দামে ভাল ও টেকসই ফোন নিতে চাইলে এটি হবে আপনার প্রথম চয়েস। এতে রয়েছে  ৫.৫০-ইঞ্চি টাচস্ক্রীন ডিসপ্লে, যার রেজুলেসন ১০৮০ পিক্সেল by ১৯২০ পিক্সেল। এই মোবাইলটি 1.5GHz quad-core Qualcomm Snapdragon 617 প্রসেসর দ্বারা চালিত এবং এতে রয়েছে ৪ জি.বি RAM. ক্যামেরা প্রসঙ্গে এতে রয়েছে ১৬ মেগাপিক্সেল প্রধান ক্যামেরা এবং ৫  মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। অ্যান্ড্রয়েড ভার্সন 6.0.1 এর সাথে রয়েছে 3000 mAh এর ব্যাটারি। দুই সিম ফিচারের সাথে আরও আছে ওয়াই ফাই, জিপিএস, ব্লুটুথ, এনএফসি, 3G, 4G এবং নানা রকম সেন্সর যা হল Fingerprint, accelerometer, gyro, proximity.

৫। Huawei Google Nexus 6P:- গুগলের নেক্সাস ফোন যখনি বাজারে এসেছে তখনি বাজার মাত করেছে। হুয়াওয়ে গুগল নেক্সাস 6P স্মার্টফোন অক্টোবর ২০১৫ সালে রিলিজ করে, বের করার পর পর ভাল সাড়া পায় এই ফোন। এতে রয়েছে  ৫.৭০-ইঞ্চি টাচস্ক্রীন ডিসপ্লে, যার রেজুলেসন ১৪৪০ পিক্সেল by ২৫৬০ পিক্সেল। এই মোবাইলটি 2GHz octa-core Qualcomm Snapdragon 810 প্রসেসর দ্বারা চালিত এবং এতে রয়েছে ৪ জি.বি RAM. ক্যামেরা প্রসঙ্গে এতে রয়েছে ১২.৩ মেগাপিক্সেল প্রধান ক্যামেরা এবং ৮ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। অ্যান্ড্রয়েড ভার্সন 6.0 এর সাথে রয়েছে 3450 mAh এর ব্যাটারি। অ্যান্ড্রয়েড 6.0 এর সকল সুবিধা সহ এতে রয়েছে ওয়াই ফাই, জিপিএস, ব্লুটুথ, এনএফসি, 4G এবং নানা রকম সেন্সর যা হল Fingerprint, accelerometer, gyro, proximity, compass, barometer.

আপনার মন্তব্য