মিথ্যা ছড়ানোর দায় মেনে নিল ফেসবুক

38
SHARE

ইশতিয়াক আহমেদ 

এবারের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হিলারির বিরুদ্ধে মিথ্যা খবর ছড়ানোর অভিযোগ উঠেছিল ফেসবুকের বিরুদ্ধে। যুক্তরাষ্ট্রের বিদায়ী প্রেসিডেন্ড ওবামা নিজেও এটা বিশ্বাস করেন যে, ফেসবুকে মিথ্যা ছড়ানোর কারণেই ডেমোক্রেট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন পরাজিত হয়েছেন। আর ফেসবুকে মিথ্যা খবর ছড়ানোর সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন।

শুরুতে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এ অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন। কিন্তু এবার মনে হচ্ছে ফেসবুক মিথ্যা খবর ছড়ানোর দায় মেনে নিয়েছে। সরাসরি তারা এটা স্বীকার না করলেও মিথ্যা ছড়ানো বন্ধের পরিকল্পনা প্রকাশ করে পরক্ষোভাবে সেটাই স্বীকার করে নিয়েছে।

ফেসবুকে একটি পোস্টের মাধ্যমে ফেসবুকে মিথ্যা খবর ছড়ানো বন্ধের পরিকল্পনার বিস্তারিত প্রকাশ করেছেন ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গ জানান, বিষয়টিকে তারা খুবই গুরুত্বের সাথে নিয়েছেন এবং এই সমস্যা সমাধানে বেশকিছু ব্যবস্থা নিয়েছেন

সাম্প্রতিক মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সামাজিক যোগাযোগের সাইট ফেসবুকের বিরুদ্ধে বেশকিছু ভুল খবর ছড়ানোর অভিযোগ ওঠে। বলা হয় যা নির্বাচনের ফলাফল নির্ধারণে প্রভাব ফেলে। এর আগেও ফেসবুকের মাধ্যমে নানা ধরনের গুজব বা অসত্য তথ্য ছড়িয়ে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা চলেছে। এই ধরনের নানা অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গ জানিয়েছেন, তার দুশ্চিন্তা এবং পরিকল্পনার কথা।

এর আগে প্রকাশিত খবরে বলা হয়, মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট দলের প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের হেরে যাওয়ার কারণ স্পষ্ট করতে গিয়ে বিদায়ী প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেন, সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে সফলভাবে প্রচারণা চালাতে না পারায় হিলারি ক্লিনটন হেরে গেছেন

আর ব্রিটিশ দৈনিক ইন্ডিপেন্ডেন্ট পত্রিকার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ট্রাম্পের পক্ষে বহুসংখ্যক ভুয়া নিউজ ওয়েবসাইট খোলা হয় এবং নিয়ে ওবামা ব্যক্তিগতভাবে চিন্তিত ছিলেন। বিষয়টি নিয়ে তিনি তার পরামর্শক দলের সঙ্গে আলোচনাও করছিলেন। ব্রিটিশ পত্রিকার প্রতিবেদন অনুসারে, শত শত বানানো প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে যা ডোনাল্ড ট্রাম্পকে তুলে দিয়েছে এবং এগুলো হিলারির জন্য অপবাদ পরাজয় ডেকে এনেছে

একই ধরনের তথ্য প্রকাশ করেছেন নিউ ইয়র্কার পত্রিকার সম্পাদক ডেভিড রেমনিক। তিনি জানান, অনলাইনে ভুয়া সংবাদ প্রতিবেদন নিয়ে ওবামার টিম খুবই উদ্বিগ্ন ছিল। এসব প্রতিবেদন কলাম হিলারির জন্য হোয়াইট হাউজে যাওয়ার সম্ভাবনার পথে ঝুঁকি সৃষ্টি করেছিল।  

এসবের পরিপ্রেক্ষিতে জুকারবার্গ জানিয়েছেন, এর পর থেকে কোন ভুয়া খবর ছড়ানোর চেষ্টা হলে তা সনাক্ত করা হবে এবং ভুল তথ্য হিসেবে তা শ্রেণীভুক্ত করা হবে।

রিলেভেন্ট এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি – ঠিকানা – YouTube.com/Bangladeshism

আপনার মন্তব্য