আবারও এনা পরিবহন

83
SHARE

সোহেল হাবিব

আবারও দুর্ঘটনা ঘটিয়েছে এনা পরিবহনের একটি বাস। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে এনা পরিবহনের একটি বাসের চাপায় চার অটোরিকশা আরোহী নিহত হয়েছেন। ৩০ নভেম্বর বুধবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের উপজেলার শর্শই নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

দুর্ঘটনা তো দুর্ঘটনাই। এক্ষেত্রেও হয়তো তাই হয়েছে। কিন্তু তারপরও কথা থেকে যায়। কারণ দায়ী বাসটি এনা পরিবহনের। আর দুর্ঘটনা ঘটানোয় তাদের রয়েছে অতীতের তিক্ত রেকর্ড।

তাই বিষয়টিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সংশ্লিষ্টদের প্রতি গভীরভাবে ক্ষতিয়ে দেখার অনুরোধ করছি। পাশাপাশি এনা পরিবহনের মালিক পক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, তারাও যেন এর সঠিক কারণ খুঁজে বের করে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করেন।

এনা পরিবহন নিয়ে এক সময় আতঙ্কে ছিল মহাসড়কে চলাচলকারী অন্যান্য পরিবহন এবং তাদের যাত্রীরা। পথচারীরাও ভয়ে তাদের থেকে দূরে থাকত। ছোট ছোট যানবাহনের চালকরাও ভয়ে যথাসম্ভব দূরে দূরে থাকত।

কারণ হচ্ছে পরিবহনটির চালকরা এতটাই বেপরোয় গতিতে গাড়ি চালাতেন যে, তাতে যে কারো পিলে চমকে যাওয়া অস্বাভাবিক ছিল না। এমনকি এনা পরিবহনের যাত্রীরাও নিজেদের নিরাপদ মনে করতেন না।

এনার চাকলদের অস্বাভাবিক গতিতে গাড়ি চালানোর কারণে প্রায় সময়ই দুঘর্টনা ঘটত।

সেন্টার ফর ইঞ্জুরি প্রিভেনশন অ্যান্ড রিসার্চ বাংলাদেশ (সিআইপিরবি)’র পর্যবেক্ষণেও দেখা গেছে, ঢাকা–সিলেট মহাসড়কে ৩০ থেকে ৩৫ ভাগ দুর্ঘটনার জন্য দায়ী দূরপাল্লার বাস। আর সবচেয়ে বেশি দুর্ঘটনা ঘটাচ্ছে এনা বাস। মহাসড়কে এ বাসের গতি যেখানে ৮০ থাকার কথা, সেখানে ১০০ থেকে ১২০ গতিতে ছুটে চলে।

ফলে এনা পরিবহন চালকদের বেপরোয়া মনোভাব নিয়ে সংবাদ মাধ্যম তো বটেই, সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমেও প্রচুর সমালোচনা হয়েছে।

সম্ভবত সে কারণেই তাদের যাত্রী কমে যাচ্ছিল। অবস্থা টের পেয়ে মালিক পক্ষ বেশ কিছু প্রতিকারমূলক সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রসংশা কুড়িয়েছেন।

তখন এনা পরিবহনের মালিক খন্দকার এনায়েতুল্লাহ গণমাধ্যমকে বলেছিলেন, ‘কোনো মালিক চায় না দুর্ঘটনা ঘটুক। তবে, ঈদের সময় চালকরা বেপরোয়া গতিতে ছুটেছে। ওই সময় স্পিড লিমিট ভেঙে ফেলেছিলো ড্রাইভাররা। ঈদের পরে আবার কঠোরভাবে সর্বোচ্চ গতি ৮০ কিলোমিটার মানা হচ্ছে।’

কিন্তু এরপরও কেন আবার দুর্ঘটনা ঘটল তার অনুসন্ধান ও প্রতিকার হওয়া দরকার। আশা করি, এনা পরিবহন মালিক পক্ষ আরও সচেতন হবেন।

Latest Video Release

বাংলাদেশের টাইগারদের উৎসর্গ করে বাংলাদেশীজম প্রজেক্ট তৈরী করেছে একটি বিশেষ ভিডিও। নীচে ভিডিওটি দিয়ে দিলাম। দেখে ফেলুন।

আপনার মন্তব্য