৫ থেকে ১০ গুন মুনাফা আদায় করা হচ্ছে সাধারণ মানুষের উপর !

Question

বাংলাদেশের অনেক দোকানে দেখা যায় ক্রয়মল্যের চেয়ে ৫ গুন বেশি টাকা আদায় করে নিচ্ছে অনেক ব্যবসায়ী । এ সকল ব্যবসায়ী সাধারণ আপনারা দেখতে পাবেন নিম্ম, মধ্য বিত্ত শ্রেণীর ভোক্তারা পন্য ক্রয় করতে যান । চট্টগ্রামের হকার মার্কেট, রিয়াজউদ্দিন বাজারে ফুটপাতের দোকান, বেসপিং , জনক প্লাজা সহ আরও কিছু মার্কেটে কাপড় ও কচমেটিক সমগ্রি বিক্রয় করা দোকানদার গুলো ৫ থেকে ১০ গুন দাম আদায় করতে দেখা যায় । যা বাংলাদেশের নিম্ম আয়ের মানুষের জন্য অনেক কষ্ট কর । এক পন্যের গুনগত মানগত সুবিধা বিচার করে ঐ পন্যটির দাম যদি হয় ১৫০ টাকা , তখন ঐ দোকানদার তখন ভোক্তার নিকট থেকে মূল্য দাবি করে ৫০০ + ! এই পদ্ধতি টি ভোক্তার উপর জুলুম নয় ? মুনাফাই ব্যবসায়ের মূল লক্ষ্য । তাই বলে এই ধরণের মূল্য দাবি করা কতটুকু যুক্তিযুক্ত ? এবং এই জুলুম কিভাবে বন্ধ করা যায় ?

in progress 0
সামাজিক অবক্ষয় Muhammad Afser 1 week 4 Answers 57 views Silver 2

Answers ( 4 )

  1. গ্রামে মরিচের কেজি ২০ টাকা কিনতু শহরে সেটা ৪০০ টাকা। মানে কৃষক এবং ক্রেতা উভয়কে ঠকানো হয়।কিছু অসৎ লোকের জন্য দ্রব্য মূল্য বৃদিধ পায়। সরকারের উচিত বাজার মনিটরিং করা এবং যারা দায়ী তাদেরকে সাজা দেয়া।

  2. এই সমস্যটা শুধুমাত্র চট্টগ্রামের নয়। এটি পুরো দেশের সমস্যা। দ্রবমূল্যের এই অধিক দামের কারনে সবচেয়ে বেশি সমস্যার সম্মূখীন হচ্ছে মধ্যবিত্ত বা নিম্ন অায়ের মানুষেরা। খেটে খাওয়া এই সকল নিম্নবিত্ত মানুষের জীবন-যাপন করতে এমনিতেই অনেক কষ্ট করতে হয়, এ কষ্ট যেন আরো বহুগুনে বেড়ে যায় যখন দ্রবমূল্যের দাম লাগামছাড়া হয়ে যায়। তাই জন-সাধারনের জীবন-মান একটু সহজ করতে সরকারেরে এই দিকটার উপর একটু বিশেষ নজর দেওয়া উচিত। বিশেষত সরকারের বানিজ্য মন্ত্রনালয়ের নিয়মিত বাজার মনিটরিং করা উচিত। এবং যে সকল অসাধু ব্যাবসায়ীরা খাদ্য মজুদ করে বাজারে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির ব্যাবস্থা করতে হবে। তবেই বাজার পরিস্থির কিছুটা উন্নতি হবে বলে আশা করা যায়।
    ধন্যবাদ।

  3. বর্তমানে আমদের দেশের অনেক সমস্যার ভিতর এটি একটি বড় সমস্যা বলে আমি মনে করি।
    আর সব সমস্যার সমাধান অবশ্যই আছে।

    আমার মতে
    উদ্যোক্তার কাছ থেকে ভোক্তার নিকট নিত্য প্রয়োজনিও জনিস পোঁছান এর ভিতর যত সেক্টর আছে যেমন (উদ্যোক্তা….. পাইকার……. খুচরো বিক্রেতা….. ভোক্তা) একটা সুনিদিষ্ট বাজার চাট রাখতে হবে আর এর উপর সরকার এর কঠোর আদেশ রাখতে হবে। প্রতেকটা লেনদেন এর সাথে নগদ রশিদ এর ব্যাবস্তা রাখতে হবে তাহলে সরকার পাবে তার সঠিক ট্যাক্স আর জনগণ পাবে সঠিক মুল্য।

    আমার মতান্তর এ যদি কোন ভুল হই মাপ করবেন।

    • বর্তমানে রশিদ দেওখাতে বললে রশিদ দেখানো হয় । কিন্তু মূল রশিদ দেখানো হয় না । নকল করে আরেকটা বানিয়ে রাখে ।

Leave an answer

Captcha Click on image to update the captcha .

About Muhammad AfserSilver